বেনাপোলে বিজিবির ফেন্সিডিল আটকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজিবির সোর্স আখ্যায়িত করে বাবুকে মারাত্নক জখম : থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত: ১:৪৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০ | আপডেট: ১:৪৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০
বেনাপোল(যশোর):- বেনাপোল পোর্ট থানাধীন সীমান্তবর্তী গ্রাম সাদীপুরে আসামীদের লোহার রডের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন ঐ গ্রামের বাসিন্দা বেনাপোল চেকপোষ্টে বাবু ষ্টোরের স্বত্তাধিকারী মেহেদী হাসান বাবু।
আহত মেহেদী হাসান বাবু’র  থানার অভিযোগ নামায় জানা যায়, কিছুদিন আগে সাদীপুর সীমান্ত থেকে বিজিবি কর্তৃক আসামীসহ ১৪০০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার করে বেনাপোল পোর্টথানায় সোপর্দ করে। ঐ ঘটনায় আসামীরা বিজিবি’র সোর্স বলে আহত মেহেদী হাসান বাবু কে দোষারোপ করে গত ২১/১১/২০২০ ইং তারিখ সন্ধ্যা ৭ ঘটিকার দিকে আহত দোকানদার বাবু তার দোকান বন্ধ করে বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে সাদীপুরের গাবতলা বাজারে পৌছানো মাত্রই ঐ গ্রামের বাসিন্দা ১নং আসামী সুলতান আহম্মেদ বাবু,পিতা:- মৃত বজলুর রহমান আহত বাবুকে পাশে ডেকে নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আহত বাবু প্রতিবাদ করিলে ১ নং আসামী সহ অন্য ৪ জন আসামী যথাক্রমে- সাকিল(২৫) পিং- সুলতান আহম্মেদ বাবু,ইয়াছিন(৩০) পিং- কামাল হোসেন, রমজান(৩০) পিং- রহমান,শওন(২২) পিং-অজ্ঞাত,সর্ব সাং-সাদীপুর,থানা:-বেনাপোল পোর্ট উপজেলা -শার্শা,যশোর আসামীগন লোহার রড দিয়ে এলোপাথারী মারপিট করে জখম করে। আহত বাবু’র চিৎকারে স্বাক্ষী মোঃ সাজ্জাদ(৪২) পিং- মিজানুর রহমান,মোঃ হাসানুর রহমান(১৯) পিং- মোঃ কাশেম আলী,উভয় সাং সাদীপুর,থানা: বেনাপোল পোর্ট সহ অন্যান্যরা এগিয়ে আসলে আসামীরা পালিয়ে যায়। তিনি আরো বলেন,  হামলার শিকার হয়ে এরপর  তিনি দ্রুত শার্শা উপজেলা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ছিলেন  ৷ হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে  সে বাসায় এসেছে ,ছাড়পত্রের কপি  থানায় জমা দেওয়া হয়েছে বলে তিনি
গণমাধ্যমকর্মীদের কে জানান । পরবর্তীতে ঘটনার বিষয় স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গদের অবহিত করিয়া আপোষ মিমাংসায় ব্যর্থ হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে।
আহত বাবু সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আইনের পাশাপাশি পত্রিকান্তরে সত্য ঘটনা প্রকাশ করে আসামীদের বিরুদ্ধে শাস্তি মুলক ব্যবস্থা গ্রহনে আদালতের স্মরনাপন্ন হতে চাই।