স’হবাস নিয়ে ৫টি মজার তথ্য, যা আপনি জানতেন না

প্রকাশিত: ৫:১৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০২০ | আপডেট: ৫:১৩:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০২০

আপনি যখ’ন হাসেন তখন কি আপনার গা’লে ছোট দুটি টোল পড়ে? যদি পড়ে তাহ’লে আপনি নিশ্চই অ’কবার শুনেছেন যে, আপনি অনে’ক মিষ্টি। আপনার হাসি অ’নেক মিষ্টি।

কিন্তু অনে’কের এই গালের মিষ্টি টোল শরীরের আরো একটি জা’য়গায় পড়ে সেটা হচ্ছে আপনার কো’মর। হ্যাঁ বন্ধুগন কোমরে যদি আপ’র টোল থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনি খুব ভা’গ্যবান একজন মানুষ। এবং এটা কেন তা নি’য়েই নিচে আলোচনা করা হল –’

হ্যাঁ আপনার কোম’রে যদি টোল পড়ে তাহলে আপনি বু’ঝে নেবেন আপনি খুব ভা’গ্যবান। কোমরের এই স্ব’র্গীয় টোলের রয়েছে অনেক সুবিধা। সব’চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কোমরে টোল পড়ে’ এমন মানুষের জী’বন হয় খুব আনন্দ’দায়ক। পরিপূর্ণ অভিজ্ঞতা কেবল এমন মানু’ষদেরই থাকে।

আরও পড়ুন : ছু’টি কাটাতে কিংবা কাজের তা’গিদে বাড়ি ছেড়ে অন্য কোথাও গেলে থাকার জন্য হোটেলই ভরসা। কমদামি হোক কি বেশি দামি—সব হো’টেলেই কিন্তু কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম রয়ে’ছে। সে সঙ্গে অনেকেই হোটে’লে থাকতে গিয়ে এমন কিছু ভুল করে বসেন, যার মাশুল গুনতে হয় বিশাল পরি’মাণের। স্মার্টার ট্রাভেল এমন কিছু সচরাচর ভুল নিয়ে একটি প্রতিবেদন করেছে। হোটেলে অবস্থানের ক্ষেত্রে এই ভুলগুলো যেন কখনোই না হয়, সে ব্যা’পারে খেয়াল রাখা উচিত আ’মাদের সবার।

১. রিমোট কন্ট্রোল ব্যব’হার করবেন না : হোটেলটি সুলভ বা বিলাস’বহুল যেমনই হোক না কেন, এতে জী’বাণুর উপস্থিতির সম্ভাবনা বেশি। সাম্প্র’তিক এক গবেষণায় এ তথ্য জানা গেছে। আ’র এসব জীবাণুর একটি বড় অংশ থে’কে যায় টেলিভিশনের রিমোট কন্ট্রোলে। ঘর’দোর যতই ঝেড়ে পরিপাটি করা হোক, রিমো’ট কিন্তু সেভাবে পরিষ্কার করা হয় না। কা’জেই এতে জীবাণু বহাল তবিয়তে রয়ে যা’য়। সুতরাং সাবধান!

২. মূল্যবান জিনিস রু’মে রাখবেন না : মূল্যবান জিনিসপত্র অনে’কেই হোটেলরুমের গোপনীয় কোনো একটি জায়’গায় রেখে দেন। এটি চরম ভুল। হো’টেলরুম থেকে চুরি করতে যারা ওস্তাদ, তা’রা কিন্তু ওই সব ‘গোপন’ জায়গার হদিস আপ’নার চেয়ে ভালো জানে! সুতরাং একটু প’য়সা খরচ করে কর্তৃপক্ষের লকারে নিজে’র মূল্যবান জিনিস রেখে দিন। নিরাপদ থাক’বেন।

৩. ‘ডু নট ডিস্টার্ব’ সাইন : দর’জা লাগিয়ে দিলেই কিন্তু হলো না। যতক্ষণ না ‘ডু নট ডিস্টার্ব’ সাই’ন বাইরে ঝুলিয়ে দিচ্ছেন, ততক্ষণ যে কেউ এসে উটকোভাবে আপনার ব্যক্তি’গত সময় যাপনে বাদ সাধতে পারে। আবার ঘর প’রিষ্কারের চিন্তা থাকলে সেটি সরিয়ে ফেলুন। কারণ, ওই সাইন ঝো’লানো থাকলে হোটেলের পরি’চ্ছন্নতাকর্মীরাও আপনার ঘরের আ’শপাশে ঘেঁষবে না।

৪. রুম নম্বর বল’বেন না : যেখানে সেখানে বা চেক-ইনের সম’য় আপনার হোটেলের রুম নম্ব’রটি নিজে উচ্চারণ করবেন না। দুষ্কৃতকারীরা এস’ব তথ্যের জন্যই মুখিয়ে থাকে। এ বিষয়টি যত’টা পারেন গোপন রাখুন, নতুন প’রিচিত কাউকেই রুম নম্বর জানাতে যাবেন না।

৫. চট করে দর’জা খুলবেন না : দরজায় কড়া নাড়া হ’লো আর কিছু না বুঝেই বললেন, ‘কা’ম ইন।’ এই বিশাল ভুলটি ক’খনোই করতে যাবেন না। হো’টেল কিন্তু দিন শেষে কখনোই তেম’ন নিরাপদ জায়গা নয়। সুতরাং পরি’চয় জেনে তার পরে দর’জা খুলুন। মনে রাখবেন, অচেনা জা’য়গায় অচেনা কেউ তো আপনার স’ঙ্গে দেখা করার কথা নয়। কাজে’ই সাবধান। আর সব স’ময় দরজা লাগিয়ে রাখতে ভুলবেন না।

৬. হোটেলের মি’নিবারের পানীয় নয় : কোমল কিংবা কঠিন, যেমন পানী’য়ই খান না কেন, সেটি হোটেলের মি’নিবার থেকে খেতে যাবেন না। কারণ, সাধা’রণত হোটেলের মিনিবারগুলোতে পাঁচ টাকার খাবা’রের দাম অন্তত ৫০ টাকা রাখা ‘হয়! শেষে দেখবেন, আপনার রুম ভাড়ার চে’য়ে মিনিবারের বিলই গুনতে হচ্ছে দ্বিগুণ-তিন গু’ণ!

৭. ছারপো’কায় সাবধান : যত বিলাসবহুল ক’ই হোক আর সুসসজ্জিত বিছানা হোক, ছারপো’কা ঠিকই জানে কীভাবে নিজের জায়গা ক’রে নিতে হয়। কাজেই এ ব্যাপারে ‘ভালোমতো তল্লাশি চা’লান, ছারপোকার সামান্য আনা’গোনা দেখলেই সবকিছু ঠিকঠাক ক’রে দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে অব’হিত করুন। কারণ, এই ছার’পোকা কেবল আপনা’কে কামড়াবে তা-ই শু’ধু নয়, আপনার সঙ্গে’ সওয়ার হয়ে আপনার বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে যাবে অব’লীলায়।

৮. ক’লের পানি খাবেন না : এক ব্রিটিশ দ’ম্পতি লস অ্যাঞ্জেলেসে বেড়াতে এসে ট্যা’প বা কল থেকে পানি পান ক’রেন। সেই পানিতে কে’মন যেন বিচিত্র স্বাদ, এমন স্বা’দের পানি নাকি তারা কখনোই খাননি। প’রে অনুসন্ধানে জানা গেল, হো’টেলের জলাধারে এ’কটি মৃতদেহ! কার ভাগ্যে কী থা’কে, তা তো আর বলা যায় না। সুতরাং ভুলে’ও কিছু টাকা বাঁচানোর জন্য হোটেলরু’মের কলের পানি খাবেন না। ভরসা রা’খুন দোকান থেকে কেনা মিনারেল ওয়া’টারের বোতলে।