নতুন আলুর কেজি ১৫০ টাকা!

প্রকাশিত: ১:২৫ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০ | আপডেট: ১:২৫:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০

মুন্সীগঞ্জে পর্যাপ্ত আলু মজুদের পরও আ’লুর বাজার নিয়ন্ত্রণে আসছে না। জেলায় ১৩ লা’খ টনেরও বেশি আ’লু উৎপাদন হয়েছে।

আলু উৎপা’দনে শীর্ষ জেলা মুন্সীগঞ্জে আলুর দা’ম এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। হিমাগার গেট, পা’ইকারি ও খুচরা বাজার কোথাও সরকার নির্ধারিত মূল্যের বাস্তবায়ন নেই। ‘তাই জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নে’মেছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুবায়েত হা’য়াত শিপলু জানান, জেলার প্রতিটি হি’মাগারে কি পরিমাণ আলু সংরক্ষণ করা আছে এবং প্রতিদিন কি পরিমাণ আলু বা’জারে ছাড়া হচ্ছে সেই হিসাব প্রতিদিনই নে’য়া হচ্ছে।

এদিকে বাজারে ন’তুন আলু এসেছে। তবে দাম ক’মেনি। বরং চলমান বা’জারদরে নতুন আলুর দাম তিনগুন বে’শি। ১৫০ টাকা কেজিতে বি’ক্রি হচ্ছে নতুন আলু।

শু’ক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাজধানীর শা’ন্তিনগর কাঁচাবাজার, শাহজাহানপুর, মা’লিবাগ, মগবাজার, রামপুরা কাঁ’চাবাচারসহ অধিকাংশ বা’জারে পুরাতন আলুর পা’শাপাশি নতুন আলু উঠেছে। দাম বে’শি হওয়ায় কম করে দোকানে তু’লেছেন বিক্রেতারা। দাম বে’শির কারণে বিক্রিও ক’ম। এ’ক বা আধা কেজির বে’শি কেই কিনছেন না।

শাহজাহানপুর বাজারের স’বজি বিক্রেতা মো. সানোয়ার জানান, পু’রাতন আলু ৪৫ টাকা কে’জি বিক্রি হচ্ছে। ক্রে’তাদের আগ্রহ পু’রাতন আলুতে বেশি। এ’কদিন আগে তিনি ১০ কে’জি নতুন আলু তু’লেছেন। দু’ইদিনে বিক্রি হয়ে’ছে অর্ধেক।

ক্রে’তারা জানান, বাজারে নতুন আ’লু উঠেছে, কিন্তু দা’ম কমার লক্ষণ নে’ই। আগের সেই আলু ৪৫ টা’কার কমে কোথাও বি’ক্রি হচ্ছে না।