ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে অজ্ঞান করে স্ত্রীকে ধর্ষণ

প্রকাশিত: ৩:০৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০ | আপডেট: ৩:০৯:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০

বরগুনার পাথ’রঘাটা থানার কাকচিড়া ইউনিয়নের মাঝের চরে কোমল পানীয়ের সা’থে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে স্বামীকে খাইয়ে অজ্ঞান করে স্ত্রী (২০)-কে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধ’র্ষণেরর শিকার ঐ গৃহ’বধূ সোমবার (২৬ অক্টোবর) রাত ৮ টায় বরগুনা এসে তার স্বামী চান’মিয়া (৩৫)-কে বরগুনা ‘জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি ক’রেন।

নির্যাতিতা গৃহবধূ বাংলাদে’শ প্রতিদিনকে জানান, মাঝের চরে স্বামী’কে নিয়ে তিনি বসবাস করেন। রবিবার (২৫ অক্টোবর) রাত ১০ টার দিকে বিষখালী নদীতে খে’য়াপার হয়ে যাবার আগে সুলতান, কামাল ও মজনু তার স্বা’মীকে পরিকল্পিত ভাবে পানীয়ের সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ালে তার স্বামী অ’জ্ঞান হয়ে পড়ে। তার স্বামীকে খেয়াঘাটে রে’খে ৩ জন তার ঘরে আসে এবং বাকি ২ জনের সহযোগিতায় সুলতান তাকে যৌ’ন নির্যাতন করে। অজ্ঞান অবস্থা’য় লোকজন তার স্বামী’কে বাড়ি নিয়ে আসে।

নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ আ’রও জানায়, সোমবার তার পরিবারের প’ক্ষ থেকে পাথরঘাটা থানায় অভিযোগ ক’রলে ওসি অভিযোগ না নিয়ে আবার এ ধ’রণের ঘটনা হলে তাকে জানা’তে বলে তাদেরকে বাড়ি পা’ঠিয়ে দেয়।

ওই গৃহবধূর ভাসুরের স্ত্রী ই’রানী বেগম জানান, সোমবার সকাল ১১ টার দি’কে দেবরের স্ত্রী ও দেব’রকে নিয়ে পাথরঘাটা হাসপাতালে যাই। হাসপা’তাল থেকে থানায় যাবার জন্য বল’লে তারা থানায় গিয়ে অভিযোগ কর’তে চাইলে ওসি তাদের অভিযোগ নেয়নি।

পাথরঘাটা থা’নার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাহাবুদ্দিন আহমেদ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, থা’নায় আমরা লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি। কিন্তু তারা অ’ভিযোগ না দিয়ে চ’লে যায়।’