শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চূড়ান্ত হচ্ছে ২ দিন ছুটি

প্রকাশিত: ২:০৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০ | আপডেট: ২:০৬:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০

দেশের শি’ক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে সাপ্তাহিক দু’ই দিন ছুটির বিধান রে’খে চূড়ান্ত হচ্ছে ন’তুন খসড়া ছুটির তালিকা। আগামী ২০২১ শি’ক্ষাবর্ষের জ’ন্য তা চূড়ান্ত করেছে জ’নপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রস্তাবিত তা’লিকাটি অনুমোদনের জন্য শি’গগিরই মন্ত্রিসভার বৈ’ঠকে উপস্থাপন ক’রা হবে।

ম’ন্ত্রিসভা এ তালিকা অনুমো’দন দিলে সংশ্লিষ্ট ম’ন্ত্রণালয় থেকে তা প্রজ্ঞা’পন আকারে প্রকাশ ক’রা হবে। এ ছুটির ভিত্তিতে অনুমোদিত শি’ক্ষাপঞ্জি অনু’যায়ী, আগামী বছ’রের ক্লাস-ছুটি-পরী’ক্ষাসহ সব শিক্ষা কার্য’ক্রম পরিচালিত হবে।

চল’তি নিয়মে কেবল শুক্রবার শিক্ষা’প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছুটি বিদ্যমান। ত’বে নতুন নিয়মে দুই দিন থাক’বে সাপ্তাহিক ছুটি। এ ছুটি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মা’ধ্যমিক পর্যায়ের সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও কার্য’কর হবে।

এর আগে গণমাধ্য’মকে বিষয়টি নিশ্চিত ক’রেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন।

এনসিটিবির চে’য়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা গণমাধ্যমকে জানি’য়েছিলেন, ‘প্রাক প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত একটি কারিকুলামের খসড়া গত বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়েছে। কারিকুলামের কাঠামোতে আমরা বলেছি, সাপ্তাহিক ছুটি দুইদিন থাকলে সমস্যা হবে না। নতুন এই কারিকুলাম চালু হবে ২০২২ সাল থেকে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সরকারি ছুটি সপ্তাহে দুই দিন শুক্র ও শনিবার। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি শুধু শুক্রবার। এই ছুটি বাড়াতে প্রস্তাব করে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।

প্রস্তাবে বলা হয় ছুটি বাড়ালেও শি’ক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রমে কোনও ক্ষতি হ’বে না। সাপ্তাহিক এই দুইদিন ছুটির সিদ্ধান্ত ২০২২ সাল থেকে বা’স্তবায়নের প্রস্তাব করেছে এন’সিটিবি। তবে দুই মন্ত্র’ণালয় চাইলে যে’কোনও সময় এ’ই ছুটির সিদ্ধান্ত বা’স্তবায়ন করা যেতে পারে।

বিদ্য’মান সাপ্তাহিক ছুটি ও অন্যা’ন্য ছুটি ধরে শি’ক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বছরে ক্লাস চলে ২১৫ দি’ন। শনিবার সাপ্তাহিক ছু’টি ঘোষিত হলে শি’ক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস চলবে ১৮৫ দিন। কা’রণ অনেক শনিবারে স’রকারি ছুটি থাকে প্র’তিবছর।

এনসি’টিবির সূত্রে জানা গেছে, দুইদি’ন ছুটি থাকলেও শি’ক্ষার্থীদে’র বাসার যে কাজ দে’ওয়া হয়, তাতে তার লা’র্নিং আওয়ার কমবে না। আ’ন্তর্জাতিক মান বজায় রেখেই এই প্র’স্তাব করা হয়। এছাড়া ইং’রেজি মাধ্যম স্কুল এবং বে’শ কিছু বেস’রকারি স্কুল স’প্তাহে দুইদিন ছুটি চালু রেখেছে। এতে শি’ক্ষার্থীদের উপর শারীরিক ও মান’সিক চাপ কমে যাবে।