পাওনা টাকা না দিতেই গলায় ইন্টারনেটের তার পেঁচিয়ে হত্যা!

প্রকাশিত: ২:৩৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০২০ | আপডেট: ২:৩৭:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০২০

পাওনা টাকা চাইতে গি’য়েই খুন হয়েছিলেন ব্যবসায়ী বি’জয় কুমার বিশ্বাস। নয় মাস আগে তার কাছ থেকে মুনাফার ভিত্তিতে দেড় লাখ টাকা ধার নিয়েছিলেন আবদুর রহ’মান। আবদুর রহমানের কাছ থেকে টাকা আদায়ের জ’ন্য মরিয়া হন বিজয় কুমার বিশ্বাস। আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিজয় কু’মার বিশ্বাসকে গলায় ইন্টারনেটের তার পেঁ’চিয়ে শ্বাসরোধ করে খু’ন করেন আবদুর রহমান।

পরে বিজয়ের মরদে’হ গুম করে অপহরণের নাটক সা’জান। শনিবার আবদুর রহমানকে গ্রে’ফতারের বিষয়টি জানান সিআইডির চট্টগ্রাম অ’ঞ্চলের বিশেষ পুলিশ সুপার মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ খা’লেদ।

হত্যাকাণ্ডের ১০ দি’ন পর বিকাশের এজেন্ট বিজয় কুমার বিশ্বাসকে খুনের সঙ্গে জড়িত রহ’মানকে গ্রেফতারের পর এসব তথ্য জানিয়েছে সিআইডি চট্টগ্রাম। গ্রেফতার আবদুর রহ’মান (৪০) গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপু’র উপজেলার গোলাবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে।

নগরের ইপিজেড থানার নেভি ওয়েলফেয়ার মা’র্কেটের দোতলায় তার রাইড এন্টারপ্রাইজ ও মেসা’র্স হাওলাদার বিল্ডার্স নামে দুটি দোকান আছে। নিহত বিজয় কুমার বিশ্বাস কুমিল্লার চা’ন্দিনা উপজেলার সন্তোষ কুমার দাশের ছে’লে। নগরীর নেভী ওয়েলফেয়ার মার্কেটের নিচতলায় তার চাঁদনী এন্টা’রপ্রাইজ এন্ড গিফট শপ ও বিকাশ এ’জেন্টের প্রতিষ্ঠান ছিল বলে জা’নিয়েছে সিআইডি।

মুহাম্মদ শাহনে’ওয়াজ খালেদ জানান, ১৫ অক্টোবর স’কালে পাহাড়তলী থানার সাগরিকায় আ’লিফ গলি থেকে বিজয় কুমার বিশ্বাসের (৩২) মরদেহ উ’দ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মাম’লা দায়েরের পর সিআইডি ছায়া তদ’ন্ত অব্যাহত রাখে। ২০ অ’ক্টোবর মামলাটির তদ’ন্তভার পায় সিআইডি। এ মামলার ‘তদন্ত করতে গি’য়ে আবদুর রহমানের স’ম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। পরে তা’কে গ্রে’ফতারের পর এ হ’ত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন হয়।

তিনি জানান, আবদুর রহমান ও বি’জয় কুমার বিশ্বাসের মধ্যে ব’ন্ধুত্ব ছিল। পরিচয়ের সুবাদে ৯ মাস আ’গে বিজয়ের কাছ থেকে আবদুর রহমান মুনাফার ভিত্তিতে দে’ড় লাখ টাকা ঋণ নেন। মুনা’ফাসহ সেই টাকা ফেরত দিচ্ছিলেন না আবদুর রহ’মান। এ টা’কা না দিতেই আবদুর রহমান বি’জয় কুমার বিশ্বাসকে গলায় ই’ন্টারনেটের তার পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ ক’রে খুন করেন।