টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা স্থগিত: হাইকোর্ট

প্রকাশিত: ৩:২৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০ | আপডেট: ৩:২৯:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০

টেলিভিশনের সং’বাদ শিরোনামে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা স্থ’গিত করেছেন আপিল বিভাগ। এর ফলে মা’মলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত খ’বরের স্পন্সর বিজ্ঞাপন প্রচারে বাধা নেই। বি’টিআরসির আইনজীবী বলছেন, বিজ্ঞাপন বন্ধ চেয়ে মা’মলা করার এখতিয়ারই ছিল না রি’টকারীর। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এভাবে বিজ্ঞাপন বন্ধ করলে অনেক বে’সরকারি চ্যানেল বন্ধ হয়ে যাবে।

বেসরকারি টেলিভিশনগুলোর আয়ের এ’কমাত্র উৎস বিজ্ঞাপন। রিটকারীর আইনজীবীর দাবি, টে’লিভিশনগুলো বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবে। তবে সং’বাদের বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের স্প’ন্সরকৃত বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবেনা। ন’য়বছর আগের করা এক রিটের প’রিপ্রেক্ষিতে গত বছর স্পন্সরকৃত বিজ্ঞাপন প্রচারে নি’ষেধাজ্ঞা দেন উচ্চ আদালত।

এ আদেশের বি’রুদ্ধে সর্বোচ্চ আদালতে যান টেলিভিশন চ্যানেল গু’লো। শুনানি শেষে রোববার (১৮ অক্টোবর) হাইকোর্টের আ’দেশ স্থগিত করেন প্রধান বিচারপতির আ’দালত।

বিটিআরসির আ’ইনজীবী খন্দকার রেজা ই রাকিব বলেন, ‘তারা একটি হা’ইপোথিটিক্যাল ইস্যুর উপরে নির্ভর করে এই বি’চার হয়েছিলো। আমাদের সা’বমিশনটা এখানে ছিলো টিভি স্টেশনগুলো তারা স্প’ন্সর করতে নিউজগুলো আর আইনগত আ’পাতত কোন বাধা নেই।’

অ্যার্টনি জে’নারেল শুনানিতে বলেন, বি’জ্ঞাপন বন্ধ হলে অনেক বেসরকারি টিভি চ্যা’নেলের সম্প্রচার ব’ন্ধ হয়ে যাবে।

অ্যার্টনি জে’নারেল অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, ‘হাইকোর্ট ডি’ভিশন নিজেই বলছে বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারবে, খবরের মা’ঝখানে প্রচার করতে পারবো, হাইকোর্ট বলতে টিভি ক’র্তৃপক্ষ যেটা করতে পারবে না সেটা হল কোন সেগমেন্ট ভাগ করতে পারবেন না। এটা তো কোনভাবে হতে পা’রেনা। বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলো নির্ভর করে বি’জ্ঞাপনের উ’পরেই। বিশেষ করে যারা খবর দেখান এদের জন্য স’মস্যা হয়ে যাবে বেশি তাই আদালত এটা বি’বেচনায় নিবে।’

হা’ইকোর্টের আদেশের পর অনেক প্রতিষ্ঠান বি’জ্ঞাপন দেয়া থেকে বিরত থাকছেন। এ আ’দেশের ফলে বিজ্ঞাপন দিতে বাধা কে’টে গেলো।