মুশফিকের সেঞ্চুরিতেও জিতল না দল

প্রকাশিত: ১১:১৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৫, ২০২০ | আপডেট: ১১:১৮:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৫, ২০২০

বি’সিবি প্রেসিডেন্টস কাপে ১ম সেঞ্চুরিটি এলো মিস্টা’র ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিমের ব্যাট থেকে। তামিম একা’দশের বিপক্ষে ম্যাচে সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশি। তারপরও অবশ্য জেতাতে পারেননি তার দ’লকে। তামিম একাদশের বিপক্ষে ৪২ রানে হে’রেছে শান্ত এ’কাদশ।

তামিম এ’কাদশের দেয়া ২২২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নে’মে, মাত্র ১৭৯ রানেই গুটিয়ে গেছে শান্ত এ’কাদশ। ফলে আসরে ১ম হারের দেখা পেল শান্ত বা’হিনী।

একাই দল’কে টানার চেষ্টা করলেও, সেঞ্চুরি তু’লে নিয়ে আউট হয়ে যান মু’শি।

এর আগে মির’পুরে দিবারাত্রির ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে না’মে তামিম একাদশ। আগের ম্যা’চে মাত্র ১০৩ রানে অ’লআউট হও’য়ার পর, এদিন অবশ্য ব্যা’টিংয়ে নেমে বে’শ সতর্কতার সঙ্গে শুরু করে’ছিলেন তামিম ইকবাল। তবে তার সঙ্গী তা’নজিদ তামি’ম বেশি’ক্ষণ টিকতে পারেননি। মা’ত্র ৮ রান করে ‘আউট হন তিনি।

এনা’মুল বিজয়ও সুবিধা করতে পা’রেনি। তার সংগ্রহ ১২ রান। আ’গের ম্যাচে শুন্য রানে আউ’ট হওয়া মোহাম্মদ মি’ঠুন এদিনও ব্যর্থ। মা’ত্র ৪ রান করে নাইম হা’সানের বলে বোল্ড হয়ে সা’জঘরে ফেরেন তিনি।

প’ঞ্চম উইকেটে সাদাত হোসেন দি’পুকে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দে’য়ার চেষ্টা করেন অধিনা’য়ক তামিম ইক’বাল। ৩৩ রান ক’রে নাইম হা’সানের বলে আ’উট হন তামিমও।

দিপু’ও ফেরেন ৩১ রান করে। মো’সাদ্দেক সৈকতের সং’গ্রহ ১২ রান। যুব বিশ্ব’কাপজয়ী অধিনায়ক আ’কবর আলীও সুবিধা ক’রতে পারেননি ব্যাট হা’তে। মাত্র ২ রা’ন করে সাজঘরে ফি’রেছেন তিনি। প্রতি’শ্রুতিশীল অলরাউন্ডার সাই’ফুদ্দিনের সংগ্রহ ৩ রান।

দলী’য় শতরান পূর্ণ হওয়ার পর’পরই ৮ উইকেট হারিয়ে আরও এক’বার বিপর্যয়ে পড়ে তামিম এ’কাদশ। তবে উদ্ধা’রকর্তা হয়ে আসেন শেখ মেহেদী হাসান। তাইজুল ইসলামকে নিয়ে এগিয়ে নেন দল’কে। শেষদিকে ঝড় তুলে ৫৭ বলে ৮২ রা’নের একটি ইনিংস খেলেন মে’হেদী। অন্যদিকে ৪৩ বলে ২১ রানের অপ’রাজিত ইনিংস খেলে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে’ছেন তাইজুল। দু’জ’নের ব্যাটে চড়ে ২২১ রা’নের সংগ্রহ পায় তামিম এ’কাদশ।

জ’য়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শু’রুটা ভালো হয়নি শান্ত একা’দশেরও। কোনোভাবেই শনির দশা কাটিয়ে উঠতে পারছেননা ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ৭ রান করে সা’জঘরে ফিরে যান তরুণ ওপেনার সাই’ফ হাসান। অধিনায়ক শান্তও আ’উট হয়ে যান মাত্র ১ রানে।

দীর্ঘস’ময় ক্রিজে টিকে থাকার চেষ্টা করেন সৌম্য সর’কার। তবে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসার আ’গেই তাকে সাজঘরে ফেরত পা’ঠান মুস্তাফিজুর রহমান। তার আ’গে ৪৬ বলে ৯ রান করে’ন সৌম্য।

আফিফ ফে’রেন ১৫ রান করে। আগের ম্যা’চের জয়ের নায়ক তৌহিদ হৃদয় ও ইর’ফান শুক্কুর এদিন সুবিধা করতে পারে’ননি। দুজনের সংগ্রহ য’থাক্রমে ৪ ও ২৪।

সবার আসা-যাওয়ার মি’ছিলে শক্ত হাতে উইকেট আগলে রেখে’ছিলেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশ’ফিকুর রহিম। একপ্রা’ন্ত আগলে তুলে নেন আসরের ১ম সেঞ্চুরি। আ’স্তে আস্তে দলকে এগিয়ে নি’চ্ছিলেন জয়ের দিকে। ত’বে ইনিংসের ৪৫তম ওভারে মুস্তাফিজের শি’কার হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনিও। তার আ’গে খেলেন ১১১ বলে ১০৩ রানের দু’র্দান্ত এক ইনিংস।

তার আউট হও’য়ার পরপরই শেষ হয়ে যায় দ’লের জয়ের সম্ভাবনা। ১৭৯ রানে গু’টিয়ে যায় শান্ত একা’দশ।

ম্যা’চে মাত্র ১৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করে’ছেন মুস্তাফিজুর রহমান। ৪ উই’কেট শিকার করেছেন তরুণ বাঁ’হাতি বোলার শরিফুল ই’সলামও।