জন্মভূমি বরিশালে পা দিয়েই কাঁদলেন পশ্চিমবঙ্গের স্পিকার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:৪৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৭ | আপডেট: ১০:৪৮:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৭
জন্মভূমি বরিশালে পা দিয়েই কাঁদলেন পশ্চিমবঙ্গের স্পিকার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় তার জন্মস্থান বরিশালের মাটিতে পা দিয়েই কাঁদলেন। বাংলাদেশ বিমানের নিয়মিত ফ্লাইটে তিনি বৃহস্পতিবার বিকেলে ৪টায় সস্ত্রীক বরিশাল এসেছেন দু’দিনের সফরে। বরিশাল বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানাতে জেলা পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তাকে বিভাগীয়, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

জন্মভূমিতে পা রাখার অনুভূতির কথা সাংবাদিকরা জিজ্ঞেস করলে তিনি নিজের আপ্লুত অবস্থার কথা বর্ণনা করতে গিয়ে একপর্যায়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। অশ্রুসিক্ত অবস্থায় তিনি জানান পঞ্চাশের দাঙ্গার সময় তারা দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়েছিলেন। অনেক কষ্ট হয়েছে জীবনে। আজ কিছু বলার ভাষা মিলছে না। পরে তিনি বরিশাল সার্কিট হাউসে অবস্থান নেন। শুক্রবার তিনি তার স্মৃতিনিবাসে গিয়ে সেখানকার মাটি সংগ্রহ করবেন। এ ছাড়া গৈলা ও আগৈলঝাড়ার বিভিন্ন মন্দির পরিদর্শনের পর ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন।

উল্লেখ্য, বরিশালের ঐতিহ্যবাহী ব্রজমোহন কলেজের পাশের বাড়িতে জন্মেছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপ্যাধায়। তার বাবা ছিলেন বরিশাল কোর্টের প্রখ্যাত আইনজীবী প্রাণতোষ বন্দ্যোপাধ্যায়। দাদু সতীশচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়ও ছিলেন একই কোর্টের আইনজীবী। আধুনিক বরিশালের রূপকার ও স্বাধীনতা সংগ্রামী অশ্বিনী দত্ত ছিলেন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাদুর ঘনিষ্ঠ বন্ধু। ব্রজমোহন কলেজের ঠিক পাশের দোতলা বাড়িতে থাকতেন তারা। তাদের বাড়িতে বিপ্লবী চিন্তাহরণ চট্টোপাধ্যায়ের যাতায়াত ছিল। ১৯৪৮ সালের দাঙ্গায় বাবা শ্রীনাথ চট্টোপাধ্যায়ের বাগানে শিশু বিমানকে লুকিয়ে রেখেছিলেন। এবার নিজের চোখে সেই বাগান দেখতে চান তিনি। পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার বারুইপুর-পশ্চিম বিধানসভা এলাকা থেকে দু’বারের নির্বাচিত তৃণমূল বিধায়ক ও বর্ষীয়ান সংবিধান বিশেষজ্ঞ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়।