‘ইসরাইলের সঙ্গে চুক্তি ইসলামের ক্ষতিসাধনের হাতিয়ার’

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | আপডেট: ১০:২৭:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

-ইস’রাইলের সঙ্গে সংযু’ক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইনের চুক্তি নিয়ে কথা বলেছেন একজন শীর্ষ ইস’লামি স্কলার। তিনি বলেন, ইহুদিবাদীদের সঙ্গে স’ম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তি ইস’লামের ক্ষতিসাধন এবং মু’সলিম দেশগুলোর ওপর আধিপত্য বিস্তারের হাতিয়ার।

-ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর মু’সলিম স্কলার্সের (আইইউএমএস) মহাসচিব আলি আল-কারাদাঘি বলেন, ইস’লামকে উপড়ে ফেলা, মু’সলমানদের সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক মেধাসত্ব পুনঃঅধিকরণের জন্য নানারকম ষড়যন্ত্র চলছে।

-শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রের একটি হলো- ‘আব্রাহাম বিশ্বা’স’ নামে চট’কদার নতুন ধ’র্ম তৈরি। এর সঙ্গে একেশ্বরবাদী ধ’র্মগুলোর কোনো স’ম্পর্ক নেই। এটি একেশ্ববাদীদের ধ’র্মবিশ্বা’সের ভিত্তিকে দুর্বল করে।

-চলতি মাসের শুরুতে যু’ক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় ইস’রাইলের সঙ্গে স’ম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তি করে আমিরাত এবং বাহরাইন। এসব চুক্তির আনুষ্ঠানিক নাম দেয়া হয় ‘আব্রাহাম একর্ডস পিস অ্যাগ্রিমেন্ট’।

-ফিলি’স্তিনিরা এসব চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। ইস’রাইলের দখল থেকে ভূমি পুনরুদ্ধারে দশক দশক ধরে চলা ফিলি’স্তিনিদের সংগ্রামের সঙ্গে আমিরাত এবং বাহরাইনের চুক্তি, বিশ্বা’সঘা’তকতা বলে আখ্যা দিয়েছেন তারা।

-ফিলি’স্তিনি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ইস’রাইলের সঙ্গে কোনো চুক্তি হলে তা হতে হবে ২০০২ সালের আরব পিস ইনিশিয়েটিভ-এর মূলনীতি ‘শান্তির জন্য ভূমি’র ভিত্তিতে। ইস’রাইলের ‘শান্তি জন্য শান্তি’-এ দাবির ভিত্তিতে নয়।