চোর সন্দেহে গাছের সঙ্গে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

প্রকাশিত: ৩:২৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | আপডেট: ৩:২৫:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

# সিরাজগঞ্জেরকা মা’রখন্দে মধ্যযুগীয় কায়দায় কথিত এক চো’রকে গাছে বেঁধে পাশবিক নি’র্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাই’রাল হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজে’লার জামতৈল কলেজপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

# ভাই’রাল হওয়া ভিডিও’র বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুক্রবার বিকেলেকা মা’রখন্দ উপজে’লার জামতৈল কলেজপাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে। ওই গ্রামের মাছের হ্যাচারি ব্যবসায়ী হ্যাপি অ’জ্ঞাতপরিচয় যুবকটিকে দেখে ছাগল চো’র হিসেবে স’ন্দেহ করেন এবং তাকে ধরে গাছের সঙ্গে বেঁধে অমানুষিক নি’র্যাতন চালান। ভিডিও ক্লিপটিতে দেখা যায়, হাত-পা বাঁ’ধা যুবকটির হাতের নখগুলো প্লাস দিয়ে ভেঙে ফেলছেন ব্যবসায়ী হ্যাপি। এ সময় হ্যাপিকে বলতে শোনা যায়, ‘ওর আঙ্গুল দুইটা ভাঙছি। ও অন্য চো’রদের নাম না বলা পর্যন্ত ওর আঙ্গুল সবগুলো ভাঙবো, তার আগে ছাড়বো না। আমি ওকে মে’রে ফেলবো না, ওর হাত-পা ভাঙবো, তারপর ছেড়ে দেব।’

# প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অ’জ্ঞাত পরিচয় ওই ব্যক্তিকে ছাগল চো’র স’ন্দেহে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেদম মা’রপিট করেন হ্যাপি ও তার ছে’লে। গায়ের লোকজন না পি’টিয়ে ওই যুবককে পু’লিশে দেওয়ার কথা বললেও হ্যাপি কারও কথা শোনেননি। প্রায় দুই ঘণ্টা নি’র্যাতনের পর ওই যুবককে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কয়েকদিন আগে একটি ছাগল চু’রি হয়েছে দাবি করে হ্যাপি বলেন, ‘আবার আরেকটি ছাগল নিয়ে যাওয়ার সময় ছাগল চো’রকে ছাগলসহ হাতেনাতে ধরে দু-একটা চড় থাপ্পর দিয়ে ছেড়ে দিয়েছি।’কা মা’রখন্দ থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) রফিকুল ইস’লাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পু’লিশ পাঠানো হয়েছিল। নির্যাতিত যুবক ও নি’র্যাতনকারী কাউকেই পাওয়া যায়নি। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।