মাদারীপুরে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, আটক-১

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ | আপডেট: ১:২২:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ

মাদারীপুর পৌর শহরের চৌধুরী ক্লিনিক সংলগ্ন রাস্তার উপরে এক কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত ছাত্রের নাম রিমন সরদার। সে ঝাউদি ইউনিয়নের ব্রাহ্মদি এলাকার মৃত গোলাপ সরদারের ছেলে। এঘটনায় একজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

পুলিশ ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, গত ১৭ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) সন্ধায় নিহত রিমন সরদারের ভাতিজা মাসুম ও তার দুই বন্ধু চৌধুরী ক্লিনিকের সামনের রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে কথা বলতে থাকে। এসময় রাস্তায় যানজট হলে স্থানীয় এক যুবক মটরসাইকেলের হর্ন বাজায়। তারা হর্ন বাজাতে নিষেধ করে। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মাসুমকে থাপ্পড় মারে মোটরসাইকেল চালক। ঘটনা শুনে মাসুমের চাচা রিমন সরদার (২৮) ঘটনাস্থলে আসলে তার সাথেও কথা কাটাকাটি হয়। পড়ে এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে রিমনকে মারপিট করে। উপস্থিত কয়েকজন রিমনকে উদ্ধার করে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। বাসায় গিয়ে রিমন অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানেও কোন উন্নতি না হলে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। আজ শুক্রবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিমন মারা যায়। এঘটনায় একজনকে আটক করেছে সদর থানার পুলিশ।

নিহত রিমনের বড়ো ভাই সজিব সরদার বলেন, আমার ভাই মাদারীপুর সরকারি কলেজের ছাত্র। তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আমি তিন জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেছি। এই হত্যার বিচার চাই আমি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান মিয়া বলেন, শুক্রবার সন্ধায় নিহতের লাশ মাদারীপুর সদর থানায় এসেছে। আমরা এখনি লাশ সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করার জন্য পাঠাবো। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। একজনকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবো।

জিএম/হক।