মঠবাড়িয়ায় টাকা ফেরৎ পাওয়ার দাবিতে গ্রাহকদের মানববন্ধন

মঠবাড়িয়ায় প্রাইম সোস্যাল অর্গানাইজেশনের সঞ্চয়ের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০ | আপডেট: ৮:৫৬:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি :

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় প্রাইম সমবায় সমিতি লিঃ ও প্রাইম সোস্যাল অর্গানাইজেশনের গ্রাহকের জমাকৃত সঞ্চয় ও ফিক্সড ডিপোজিটের টাকা ফেরত চেয়ে মানববন্ধন করেছে ভূক্তভোগি গ্রাহকরা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাব সম্মুখ সড়কে সঞ্চয় ও ফিক্সড ডিপোজিটের টাকা ফেরত পাওয়ার দাবিতে প্রায় শতাধিক নারী-পুরুষ নেয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, ফিক্সড ডিপোজিট গ্রাহক মোসাঃ মরিয়ম বেগম, শহীদুল ইসলাম, মোসাঃ সোনিয়া বেগম ও মোসাঃ রাহিলা বেগম প্রমূখ। বক্তারা বলেন, ওই সংস্থার নির্বাহী পরিচালক, সভাপতি ও ম্যানেজার মোঃ নাসির উদ্দিন অধিক মুনাফার প্রলোভন দিয়ে প্রায় একশ গ্রাহকের নিকট কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় বলে অভিযোগ করেন। তারা বলেন, টাকা নেয়ার পর কয়েক মাস লাভের টাকা গ্রাহকদের পরিশোধ করলেও ২০১৯ সালের শুরু থেকে হঠাৎ মুনাফার টাকা দেয়া বন্ধ করে দেয় ও অফিস তালাবদ্ধ করে রাখে। তারা আরও বলেন, নির্বাহী পরিচারকের মুঠো ফোনে বারবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করছেন না। এ সময় ভুক্তভোগি গ্রাহকরা টাকা ফেরৎ চেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন।

 

ভুক্তভোগি গ্রাহক পৌরশহরের বৃদ্ধা মোসাঃ হাজেরা বেগম (যার প্রাইম সোসাল অর্গানাইজেশন এর সঞ্চয়ী হিসাব নং ১২১১৫০০১০৭৪) সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন তিনি মাসিক প্রতি ১ লাখে ২ হাজার টাকা মুনাফায় গত ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ইং সালে ২ লাখ টাকা জমা রাখেন। কিন্তু ২০১৮ সাল পর্যন্ত মুনাফার টাকা দিলেও তারপর আর কোন টাকা দেয়নি। এমনকি আসল টাকা পাব কিনা তারও কোন নিশ্চয়তা নেই।

ওই সংস্থার উন্নয়ন অফিসার ও ডিপোজিটকারী তানিয়া রানী (পিএসও হিসাব নং- ১২১১৫০০১০৭১) বলেন, ওই সংস্থায় ডিপোজিট রাখা ৪ লাখ ও ডিপিএস ৫০ হাজার টাকার লাভ ও আসল টাকা কোন কিছুই পাচ্ছি না। এমনকি গত এক বছর ধরে বেতনাদি না পাওয়ায় আমি মানবেতর জীবন যাপন করছি। তিনি আরও বলেন, ওই সংস্থায় টাকা জমা রাখায় কোন মুনাফা না পাওয়ার কারনে মিশর প্রবাসী স্বামী মিজানুর রহমান ক্ষুব্ধ হয়ে সম্প্রতি তাকে ডাকযোগে তালাক পাঠিয়ে দিয়েছে।

 

ওই সংস্থার বিনিয়োগ অফিসার মোসাঃ ফাতিমা জানান, ওই সংস্থার নির্বাহী পরিচালক নাছির উদ্দিন নিয়ম বহির্ভুত ভাবে তার স্ত্রী শামীমা সুলতানা রোজীকে সাধারণ সম্পাদক ও পরিদর্শক পদে নিয়োগ দেয়া হয়। পরে নাছির ও রোজীর খামখেয়ালীপনা অনিয়ম, দুর্ণীতি ও গ্রাহকদের টাকা উত্তোলন করে তছরুপ করে ইয়াসিন ও আলামিনের ওপর দোষ চাপাচ্ছে।

এদিকে, ওই সংস্থার পরিচালক পদ থেকে ইস্তফা দেয়া ইয়াসিন ও সাবেক ক্যাশিয়ার আল আমিন আজ মঙ্গলবার সকালে মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাইম সঞ্চয় ও ঋণদান সমিতি লিঃ ও প্রাইম স্যোশাল অর্গানাইজেশনের নির্বাহী পরিচালক, সভাপতি ও ম্যানেজার নাছির উদ্দিন কর্তৃক এক কোটি ৪ লাখ টাকা আত্মসাতের মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করে। ওই সংবাদ সম্মেলনে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট দাবী করে বলেন, নাসির উদ্দিনের একক স্বেচ্ছাচারীতা ও গ্রাহকদের অর্থ বিভিন্ন খাতের নামে ব্যয় দেখিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। যার দায়ভার আমাদের ওপর চাপাচ্ছেন বলে এ সংবাদ সম্মেলনে তারা দাবী করেন।