পছন্দের পদ হতে অপসারিত এডিসি মাসুদ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

এডিটর প্যানেল

প্রকাশিত: ২:৩৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ | আপডেট: ২:৩৫:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) অর্থ্যাৎ এডিসি জেনারেলের পদ হতে মোঃ আবদুল্লাহ আল মাসউদকে সরিয়ে সেখানে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। আর এডিসি মাসুদকে দেয়া হয়েছে এডিএম এর দায়িত্ব। ঠিক কি কারণে এ পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেয়া হলো তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা সম্ভব হয়নি।
গত ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ বুধবার ০৫.৪১.৪৮০০.০১৪.১৪.০০৪.১১-৯৫ নং স্মারকে জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক আদেশে ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ বৃহষ্পতিবার অপরাহ্নের মধ্যে বদলীকৃত পদে দায়িত্ব হস্তান্তরের জন্য তাদেরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নতুবা তারা ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ অপরাহ্নে পরস্পর দায়িত্ব হস্তান্তর করেছেন মর্মে গণ্য হবেন বলে পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, এডিসি মাসুদ কালেক্টেরেটের জেনারেলের পদে আসীন হবার জন্য ইতোপূর্বে নানা ছল-চাতুরী, কলা-কৌশল, অপপ্রচারের মাধ্যমে তার পূর্বতন এডিসি জেনারেলের বিরুদ্ধে কুৎসা রটান এবং প্রভাবশালীদের তদবিরে জেনারেলের পদটি বাগিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছিলেন বলে বাজারে জোর গুঞ্জন রয়েছে। তিনি তার চাকুরি জীবনের প্রায় ১২ বছরের মধ্যে ৪ বছর কিশোরগঞ্জ কালেক্টরেট, ২ বছর কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার এসি ল্যান্ড, ১.৫ বছরের মতো সদর উপজেলার ইউএনও এবং প্রায় ২ বছরের মতো এডিসি জেনারেল ও এডিসি শিক্ষা ও আইসিটি পদে সর্বমোট প্রায় ১০ বছরের মতো ঘুরে ফিরে একই জেলায় চাকুরিরত আছেন। চাকুরির বিধি বিধান অনুসারে একই জেলায় বিভিন্ন পদে এত বছর চাকুরির কোনো সুযোগ আছে কিনা বা থাকলেও স্বচ্ছতা বা জবাবদিহিতার স্বার্থে সে সুযোগ একজনকে দেয়া ঠিক কিনা তা নিয়ে সচেতন মহল বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।