ইসরায়েলে নিষিদ্ধ হচ্ছে ২০ আন্তর্জাতিক সংস্থা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৩:৩২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৩২:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০১৮

ওমর শাহ: ইসরায়েলি পণ্য ও বিনিয়োগ বর্জনে ফিলিস্তিনে ‘বিডিএস’ আন্দোলনকে সমর্থণ করছে এমন ২০টি আন্তর্জাতিক সংস্থাকে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে ইসরায়েল। এসব সংস্থার কোনো সদস্য ইসরায়েলে প্রবেশ করতে পারবে না। বয়কট, বিনিয়োগ প্রত্যাহার এবং নিষেধাজ্ঞা আন্দোলন (বিডিএস) কে সমর্থন করার অভিযোগে এসব সংস্থাকে নিষিদ্ধ করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে দেশটি।

ইসরায়েলের কৌশল বিষয়ক মন্ত্রণালয় রোববার এ ২০টি সংস্থার তালিকা প্রকাশ করে। দেশটির প্রকাশিত তথাকথিত এ কালো তালিকায় ইউরোপসহ যুক্তরাজ্য, চিলি ও দক্ষিণ আফ্রিকার কয়েকটি সংস্থাও রয়েছে।

ইসরায়েলের নিষিদ্ধের তালিকায় উল্লেখযোগ্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো হচ্ছে, এএফপিএস (দ্যা এসোসিয়েশন ফ্রান্স প্যালেস্টাইন সলিডারিরিট), বিডিএস ফ্রান্স, বিডিএস ইতালি, ইসিসিপি (দ্যা ইউরোপীয়ান কর্ডিনেশন অফ কমিটিস এন্ড এসোসিয়েশন ফর প্যালেস্টাইন) এফওএ, আইপিএসসি, এএফসিসি, এনএসজেপি, ইউএসসিপিআর সহ বিডিএস চিলি।

বিডিএস আন্দোলন হলো ফিলিস্তিনের নেতৃত্বাধীন পরিচালিত একটি শান্তিপূর্ণ ও অহিংস আন্দোলন। যা এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ফিলিস্তিন অঞ্চলে ইসরায়েলে অবৈধ দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে আসছে। এ সংগঠনটি ইসরায়েল সরকারকে অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বয়কটের মাধ্যমে ফিলিস্তিনিদের অধিকার আদায়ের চেষ্টা করে আসছে। বিশ্বজুড়ে ইসরায়েলি পণ্য বর্জন, দেশটি থেকে পুঁজি প্রত্যাহার এবং ইসরায়েলি পণ্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ সংক্রান্ত এ আন্দোলন বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

ইসরায়েল দীর্ঘদিন এই আন্দোলনকে দমানোর চেষ্টা করছে এবং এ পদক্ষেপটি তারই ধারাবাহিকতা হিসেবে দেখা হচ্ছে। গত বছরের মার্চ মাসের ঘোষণার ধারাবাহিকতায় এ তালিকা প্রকাশ করা হল। ইসরায়েলবিরোধী বর্জন আন্দোলনকে সমর্থনকারীদের দেশটিতে ঢুকতে বাধা দিতে আইন সংশোধন করা হবে বলে জানিয়েছিল দেশটি। ইসরায়েলের কৌশল বিষয়ক মন্ত্রী গিলাদ এর্দান এ উদ্যোগকে ‘ইসরায়েল বিরোধী সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো প্রতিরোধের ভূমিকা হিসেবে একটি পদক্ষেপ’ বলে মন্তব্য করেছেন।
সূত্র: আল জাজিরা