রি’মান্ডে শাহেদ-সাবরিনা: বেরিয়ে আসছে নানান অ’পকর্মের চিত্র

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৬:০২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০ | আপডেট: ৬:০২:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

রি’মান্ডে রিজেন্ট হাসপাতা’লের চেয়ারম্যান মোহাম্ম’দ সাহেদ ও জেকেজির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনাকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসছে নানা অ’পকর্মের চিত্র। শুধু রিজেন্ট হাসপাতা’লে অনিয়মই নয়, ভু’য়া প্রতিষ্ঠান খুলে নিম্নমানের পিপিই সরবরাহ করতেন সাহেদ। এই পিপিই’র এক লাখ ৭০ হাজার পিস কিনেছে শুধু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরই। অন্যদিকে জেকেজির অনিয়মের সাথে বিভিন্নজনের যোগসাজশের কথা স্বীকার করেছেন ডা. সাবরিনা।

দেশে এখন সব থেকে আ’লোচিত নাম রিজেন্টের মোহাম্ম’দ সাহেদ এবং জেকেজির ডাক্তার সাবরিনা চৌধুরী। আ’দালতের নির্দেশে দু’জনই আছেন গোয়ান্দা পু’লিশের জিজ্ঞসাবাদে। পু’লিশি রি’মান্ডে বেরিয়ে আসছে তাদের অ’পকর্মের চাঞ্জল্যকর নানা তথ্য।

রিজেন্টের চেয়ারম্যান সাহেদের চিকিৎসা খাত ও শিক্ষাখাত জালজালিয়াতি ও মানুষের কাছে থেকে অর্থ আত্মসাতের নানা প্রতারণার কথা উঠে আসছে। পু’লিশ বলছে, জিজ্ঞাসাবাদে নতুন অনেক তথ্য দিচ্ছেন সাহেদ। করো’না পরীক্ষার ভু’য়া রিপোর্টই নয়, আলবার্ট গ্লোবাল কম্পানি নামে অনলাইনে ভু’য়া প্রতিষ্ঠান খুলে নিন্মমানের স্বাস্ব্য উপকরণ সরবরাহ করেছে সাহেদ। এর মধ্যে খোদ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরই এই ভু’য়া প্রতিষ্ঠান থেকে কিনেছে ৫০ হাজার পিস পিপিই, এক লাখ মাস্ক, ও ২০ হাজার নিম্মমানের ডেড বডি ব্যাগ।

পু’লিশ জানায়, জেকেজির অনিয়মের সাথে বহু’মানুষের যোগসাজেস কথা স্বীকার করেছে ডাক্তার সাবরিনা। এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, সাহেদের প্রতারনার শিকার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরও।