পল্লীবন্ধুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকীতে যশোর ও বগুড়ায় উপ-নির্বাচন না করতে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২০ | আপডেট: ৮:৪০:অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২০

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই-২০২০ : সাবেক সফল রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-এর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকীর দিনে যশোর ও বগুড়ায় উপ-নির্বাচন না করতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে চিঠি দিয়ে অনুরোধ করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি।

আজ দুপুরে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া, চেয়ারম্যান-এর উপদেষ্টা সরদার শাহজাহান, জাতীয় পার্টির সাহিত্য সম্পাদক সুমন আশরাফ এবং যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ আলম জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের চিঠিটি নির্বাচন কমিশনে পৌঁছে দিয়েছেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে দেয়া চিঠিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, গেলো বছর ১৪ জুলাই সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বর্তমান সংসদের বিরোধী দলীয় নেতার দায়িত্ব পালনকালে ইন্তেকাল করেন। জাতীয় পার্টি ১৪ জুলাই দলগতভাবে শোক দিবস হিসেবে পালন করবে। দেশবাসী এই দিনে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবেন পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-কে। ১৪ জুলাই জাতীয় পার্টির অগণিত নেতা-কর্মী-সমর্থক-শুভানুধ্যায়ীদের কাছে অত্যন্ত শোকাবহ অনুভূতির দিন।

চিঠিতে জাতীয় পার্টি চেয়াম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রথম মৃত্যুর তারিখে যশোর ও বগুড়ার দুটি সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। এটা হয়তো অসতর্কতার কারণেও হতে পারে। তাই ১৪ জুলাইয়ের আগে-পরে যেকোন দিনে উপ-নির্বাচনের তারিখ পুনঃনির্ধারণ করে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এবং বিরোধী দলীয় নেতা পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করবেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে দেয়া চিঠিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সব সময় ভূমিকা রেখে আসছে। আমরা প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও সব সময় নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে আসছি। বলেন, ঘোষিত নির্বাচনেও জাতীয় পার্টির অংশ গ্রহণ আছে।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, নির্দিষ্ট সময়ে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানে একটা সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা আছে। তবে, করোনা সংক্রমণ জনিত বৈশি^ক পরিস্থিতির কারণে সেই বাধ্যবাধকতার গন্ডি ইতোমধ্যেই পার হয়ে গেছে। বলেন, যেকোন নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ এবং পরিবর্তনের এখতিয়ার প্রধান নির্বাচন কমিশনারের আছে। অতীতেও প্রয়োজনে ঘোষিত নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন করে দৃষ্টান্ত স্থাপণ করেছে নির্বাচন কমিশন। তাছাড়া সপ্তাহের মাঝে নির্বাচন অনুষ্ঠানের নজিরও নেই।

তাই, যশোর ও বগুড়া উপ-নির্বাচনের ঘোষিত তারিখ পরিবর্তন করে জাতীয় পার্টির অগণিত নেতা-কর্মীর অনুভূতির প্রতি সহানুভূতি দেখাতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি।

সম্পাদনায়- এন.আই.মিলন, (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)।