দিনাজপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের মাঝে গাছের চারা বিতরণ

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৬:৩৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২০ | আপডেট: ৬:৩৭:অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২০

দিনাজপুর শহরের জামাইপাড়া আপন ঠিকানা সংলগ্ন আলোহা সোসাল সার্ভিসেস বাংলাদেশ (এএসএসবি) এর একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান মোহাম্মদ আলী এন্ড ফয়জুন নেছা মেমোরিয়াল হাই স্কুলে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের মাঝে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বনজ, ফলজ ও ঔষধী গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

২৭ জুন শনিবার আলোহা সোসাল সার্ভিসেস বাংলাদেশ (এএসএসবি) এর নির্বাহী পরিচালক মিনারা বেগমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও জেলা ত্রাণ কমিটির আহবায়ক মোঃ আলতাফুজ্জামান মিতা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও জেলা ত্রাণ কমিটির সদস্য সচিব মোঃ ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় কমিটির মুখপাত্র মোঃ মনিরুজ্জামান জুয়েল, দিনাজপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি অধ্যাপক আব্দুস সবুর, জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও পিপি এ্যাডঃ রবিউল ইসলাম রবি ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা দিনাজপুর জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ শাহজাহান নভেল। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক মোঃ আবুল কাশেম লিটন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রদীপ ঘোষ, ছাত্রলীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক গোলাম ইমতিয়াজ ইনান, সদস্য জয়ন্ত ঘোষ। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিরা লাল রাম।

সভায় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা দিনাজপুর জেলা শাখার পক্ষ থেকে বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও ম্যানেজিং কমিটির কমিটির সভাপতি মিনারা বেগমকে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে সম্মাননা ক্রেস্ট ও উত্তরীয় প্রদান করা হয়। বক্তারা বলেন, বৃক্ষ পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বৃক্ষ সঞ্চয়ের চাবিকাঠি হিসেবে উপকার দেয়।

যেমন ফল আমাদের দেহের পুষ্টি বৃদ্ধি করে ঠিক তেমনি ঔষধী গাছ চিকিৎসা ও ঔষধ তৈরী ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রাখে। গাছ বিপদের সময় প্রকৃত বন্ধুর মত আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ প্রতিটি মানুষকে অন্তত ৩টি করে গাছ লাগানো প্রয়োজন। সেই লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা দিনাজপুর জেলা শাখা এ কর্মসূচী প্রতিটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাঝে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।