ইন্টারন্যাশনাল ফেস্টিভ্যালে জুলফিকার জাহেদীর চলচ্চিত্র ‘দ্য সাউণ্ড’

এ আল মামুন এ আল মামুন

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১:২২ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০ | আপডেট: ১:২২:পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

বিনোদন ডেস্কঃ যদি কোন গাছ জঙ্গলে পড়ে এবং আশেপাশে কেউ শুনতে না পায়, তার মানে কি কোন শব্দ হয় না গাছটি পড়ার সময়? কোন শব্দ না করে এই জীবনে কি কিছু ঘটে? যদি শব্দ শোনা যায়নি এমন কোন ঘটনা ঘটে তবে নীরবতা মানে কি? চলচ্চিত্র নির্মাতা, গীতিকার জুলফিকার জাহেদী তাঁর চলচ্চিত ‘দ্য সাউণ্ড’র মাধ্যমে এই বিষয়টি আবিষ্কার করেছেন।

তিনি দাবি করেন, সততা সব সময় শব্দের সাথে আসে। জীবন কোন কিছু শোনার সাথে সঞ্চারিত হয়। এবং মিথ্যাটিই চুপ হয়ে থাকে শব্দহীনভাবে। জীবনের ক্ষুদ্রতম থেকে বৃহত্তর অনুষ্ঠান পর্যন্ত শব্দের গুরুত্ব তিনি প্রদর্শন করেছেন কিছু পতিতালয়ের যৌন কর্মীর আচরণের উদাহরণ দিয়ে।

‘দ্য সাউণ্ড’ বা শব্দ এমন একটি চলচ্চিত্র যা আপনাকে বিতর্কিত করবে আপনার চিন্তাভাবনায়। কখনো বা আপনাকে ভাবিয়ে তুলবে আশাবাদী হিসাবে। এই নির্মাতা বাস্তব জীবনের কিছু শব্দের গুরুত্বের দিকে মনোনিবেশ করার চেষ্টা করেছেন। তবে বিতর্কিত কিছু শব্দ আর উদাহরণ দিয়েছেন যা আপনাকে আজকের সমাজে সত্য, সততা এবং নারীদের অবস্থান সম্পর্কে অবাক করে তুলবে।

কলকাতার মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রিক ভরদ্বাজ এর একটি ফেসবুক পোস্ট থেকে ইন্সপায়ার্ড হয়ে এর সংলাপ এবং চিত্রনাট্য করেছেন জুলফিকার জাহেদী নিজেই। আদ্রিয়ান ফিল্মস প্রোডাকশন প্রযোজিত চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেছেন শিশির আহমেদ, তানিন সুবহা, জান্নাত সানাই, আশরাফ কবির, আসমা শিউলি, অনামিকা যূথী প্রমুখ। একটি বিশেষ চরিত্রে নির্মাতা জুলফিকার জাহেদীকেও দেখা যাবে। জুলফিকার জাহেদী মূলত গীতিকার, নির্মাতা। বাংলাদেশ ও ইন্ডিয়ার নতুন প্রজন্ম এবং নব্বই দশকের অনেক শিল্পীরাও তার গান গেয়েছেন।

এরইমধ্যে চলচ্চিত্রটি বিশ্বের বিভিন্ন ফেস্টিভ্যালে অংশগ্রহণ করেছে এবং অর্জন করেছেন সম্মাননা। জুলফিকার জাহেদী বলেন, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির মাধ্যমে প্রত্যেক শ্রোতা একটি সামাজিক বক্তব্য পাবে। গল্পের প্রয়োজনে একটি থিম সং রয়েছে। থিম সংয়ের সুর ও সংগীত আয়োজনে ছিলেন অভিষেক ব্যানার্জি, গেয়েছেন স্নেহালিনা চক্রবর্তি। আমেরিকা এবং ইউরোপের বিভিন্ন চলচ্চিত্র ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘দ্য সাউণ্ড’। এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশ থেকে আমরা ১১টি বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয় অর্জন করেছি। আর সাতটিতে অফিশিয়াল সেলেকশন পেয়েছি। তিনি মনে করেন তার এই ব্যতিক্রমী ধরণের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি সবার প্রসংশা কুড়িয়ে সাফল্য বয়ে আনার সাথে সাথে সবাইকে ভাবিয়ে তুলবে।