আওয়ামী লীগ নেত্রী স্বপ্না হত্যা, আনোয়ার আটক

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৩:২০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০১৮ | আপডেট: ৩:২০:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০১৮
আওয়ামী লীগ নেত্রী স্বপ্না হত্যা, আনোয়ার আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের আওয়ামী লীগ নেত্রী স্বপ্না আক্তার হত্যায় জড়িত অন্যতম সন্দেহভাজন আনোয়ার হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার গভীররাতে ঢাকার মিরপুর এলাকা থেকে আটক করার পর গতকাল সকালে তাকে নবীনগর নিয়ে আসা হয়। স্বপ্না খুন হওয়ার দুইদিন আগে এলাকার সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বাদলের ঢাকার বনানী অফিসে আনোয়ারের সঙ্গে স্বপ্নার চরম বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় সংসদ সদস্য ছিলেন পাশের রুমে। দুটি মাইক্রোতে এলাকার ১৫-২০ জন লোককে নিয়ে স্বপ্না একটি ওয়াজ মাহফিলের দাওয়াত দিতে ওইদিন সংসদ সদস্যের ঢাকার রাজনৈতিক অফিসে গিয়েছিলেন। সেখানে আনোয়ার ছাড়াও প্রভাবশালী আরেক নেতা স্বপ্নাকে গালাগাল করেন।

আনোয়ার ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন। এঘটনার আগে নবীনগরের জিনদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছিলেন আনোয়ার। স্বপ্নার সমর্থন ছিলো আরেকজনের প্রতি। সেখান থেকেই স্বপ্নার সঙ্গে তার বিরোধ সৃষ্টি হয়। ২০শে নভেম্বর ঢাকার ওই ঘটনার পর বাড়িতে ফিরে স্বপ্না তার জীবন শঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন। দায়িত্বশীল অন্য আরেকটি সূত্র জানিয়েছে-মেয়ে মানুষ হয়ে ওয়াজ মাহফিলের দাওয়াত নিয়ে যাওয়ায় এবং সব কিছুতে নাক গলানোর কথা বলে সেখানে এক প্রভাবশালী নেতাও স্বপ্নাকে গালাগাল করেন। এরপরই সেখান থেকে চলে আসার সময় স্বপ্না ওই নেতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘মাঠে আসেন আমরাও দেখবো। এর দুইদিন পরই খুন হন তিনি।

স্বপ্না হত্যা মামলার বাদী আমীর হোসেন বলেন, ঘটনার ২ দিন আগে ঢাকায় ১৫-২০ জনের সামনেই আনোয়ার আমার বোনকে হুমকি দিয়ে বলেছিলো রাজনীতি করলে করার মতোই করুম, আর না অইলে তরে দেইক্কা দিমু। ঘটনার দিন আনোয়ার এলাকায় অবস্থান করছিলো বলেও জানান তিনি। ঢাকা থেকে ওইদিন সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটের দিকে বাঙ্গুরা রমজান উল্লাহ মসজিদের কাছে এসে নামে আনোয়ার। এরপর পশ্চিম দিকে চলে যায়। ২০-২৫ মিনিট পর আবার মসজিদের কাছে ফিরে এসে সিএনজি অটোরিকশা করে নবীনগর চলে যায় সে। সেখান থেকে রাতে স্পিডবোটে আরো বেশ কয়েকজনকে নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া চলে যায় আনোয়ার। আমীর হোসেন বলেন, হত্যা ঘটনা ঘটাতে সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে খুনিদের ভাড়া করে নিয়ে এলাকায় এসেছিলো বলে আমাদের ধারণা। নবীনগর থানার ওসি আসলাম সিকদার আনোয়ারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বলে জানান। সূত্র: মানবজমিন