মঈন আলীকে নিয়ে চিন্তিত ইংল্যান্ড

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৪:১৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৭ | আপডেট: ৪:১৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৭
মঈন আলীকে নিয়ে চিন্তিত ইংল্যান্ড

চলতি সপ্তাহে পার্থে ইংল্যান্ডের এ্যাশেজ সিরিজ শুরু হতে যাচ্ছে। কিন্তু সিরিজের শুরুতেই ফাস্ট বোলার স্টিফেন ফিন ও অল-রাউন্ডার মঈন আলীর ইনজুরি নিয়ে বিপাকে পড়েছে সফরকারী ইংল্যান্ড।

অনুশীলনে ব্যাটিংয়ের সময় বাম হাঁটুতে আঘাত পেয়েছেন ফিন। অন্যদিকে আলী পিঠের পেশীর ইনজুরিতে ভুগছেন এবং এ কারনে বৃহস্পতিবার অনুশীলনে যোগ দিতে পারেননি। উভয় খেলোয়াড়েরই শুক্রবার স্ক্যান করানো হবে। শনিবার পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া একাদশের বিপক্ষে দুইদিনের ম্যাচ দিয়ে ইংল্যান্ড তাদের এ্যাশেজ সফর শুরু করতে যাচ্ছে।

আগামী ২৩ নভেম্বর থেকে ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট শুরু হবার আগে ইংল্যান্ড তিনটি অনুশীলন ম্যাচ খেলবে। বহিষ্কৃত অল-রাউন্ডার বেন স্টোকসের জায়গায় ফিন শেষ মুহূর্তে দলে ডাক পেয়েছিলেন। কিন্তু ওয়াকা মাঠে নেট অনুশীলনে হাঁটুতে আঘাত পেয়ে এখন তার খেলা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ইংল্যান্ডের হয়ে ৩৬ টেস্ট খেলা ফিনকে মূল একাদশে জায়গা করে নিতে হলে জেক বল ও ক্রেইগ ওভারটনের সাথে লড়াই করেই ফিরতে হবে। কিন্তু ৪৪ টেস্ট খেলা আলী সাম্প্রতিক সময়ে ইংল্যান্ডের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন। ঘরোয়া শেফিল্ড শিল্ডে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়রা ব্যস্ত থাকায় শনিবারের ম্যাচে ইংল্যান্ড দ্বিতীয় সারির ডব্লিউএ একাদশের বিপক্ষে মাঠে নামবে।

চতুর্থবারের মতো র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থেকে বছর শেষ করলেন নাদাল
প্যারিস মাস্টার্সের দ্বিতীয় রাউন্ডে দক্ষিণ কোরিয়ার হেয়ন চুংকে ৭-৫, ৬-৩ গেমে পরাজিত করে তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছেন রাফায়েল নাদাল। আর এর মাধ্যমে বছর শেষে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ স্থানটাও নিজের দখলেই রাখলেন স্প্যানিশ এই তারকা।

১৬ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী নাদাল ৩১ বছর বয়সে বছর শেষ করায় সবচেয়ে বেশী বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকার রেকর্ড গড়েছেন। এ বছর নাদাল জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ও ইউএস ওপেনের শিরোপা। এই নিয়ে চতুর্থবারের মত র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থেকে বছর শেষ করলেন নাদাল। অথচ তার মৌসুমটা শুরু হয়েছিল নবম স্থানে থেকে। ২০০৮, ২০১০ ও ২০১৩ সালেও এই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন ক্লে কোর্টের এই অপ্রতিরোধ্য যোদ্ধা।

গতকাল ম্যাচ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে নাদাল বলেছেন, ‘অবশ্যই মৌসুমের শুরুতে এই ধরনের কোন লক্ষ্য ছিলনা। এটা চিন্তা করাও অসম্ভব ছিল। বিশেষ করে ইনজুরির কারনে দীর্ঘদিন কোর্টে অনুপস্থিত থাকার পরে ফিরে আসাটা যেকোন খেলোয়াড়ের জন্য কঠিন। গত দুই বছরে বেশ কিছু ইনজুরি আমার ক্যারিয়ারকে হুমকির মুখে ফেলেছিল। কিন্তু সব বাধাকে পিছনে ফেলে আজ আমি এখানে। অবশ্যই আমি দারুন খুশী। এটা আমার জন্য অনেক অর্থবহ। প্রথমবার যখন এই অবস্থানে থেকে বছর শেষ করেছিলাম তার থেকে প্রায় ১০ বছর পেরিয়ে গেছে।’

প্যারিস মাস্টার্সের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচটিতে জয়ী হতে পারলেই দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দ্বী রজার ফেদেরারকে পিছনে ফেলে বিশ্বের এক নম্বর স্থানটা নিজের করে নিতে পারবেন, এটা আগেই জানা ছিল নাদালের। যদিও বিশ্রামের ফলে প্যারিসের টুর্নামেন্ট থেকে আগেই নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন ফেদেরার। পরের রাউন্ডে নাদালের প্রতিপক্ষ পাবলো কুয়েভাস। উরুগুয়ের অবাছাই এই খেলোয়াড় দ্বিতীয় রাউন্ডে স্প্যানিশ এ্যালবার্ট রামোস-ভিনোলাসকে ৬-৭ (৫/৭), ৭-৬ (৭/১), ৬-২ গেমে পরাজিত করে তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছেন।

রোববারের ফাইনালে জিততে পারলে সার্বিয়ান তারকা নোভাক জকোভিচকে পিছনে ফেলে রেকর্ড ৩১তম মাস্টার্স শিরোপা জয় করার কৃতিত্ব অর্জন করবেন নাদাল।