নিজে করোনা আক্রান্ত হয়েও এতিম শিশুদের উপহার পাঠিয়ে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন র‌্যাব কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক

এ আল মামুন এ আল মামুন

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৩:৩০ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০ | আপডেট: ৩:৩০:অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০

আহম্মেদ সাব্বির রোমিও:করোনায় নিজে সক্রিয় ছিলেন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে। দুস্থদের সহায়তাও করে আসছিলেন। এরই মধ্যে নিজে গতপরশু রাতে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার দুঃসংবাদ পান র‌্যাব-৪ অধিনায়ক অ্যাডিশনাল ডিআইজি মো.মোজাম্মেলহক,বিপিএম(বার),পিপিএম। তবে তিনি এতিমখানার শিশু এবং দুস্থ মানুষদের জন্য ঈদের উপহার সামগ্রী পাঠাতে ভুলেননি।

শুক্রবার বিকেলে তার পক্ষে মানিকগঞ্জের সাঁটুরিয়া উপজেলার সাঁটুরিয়া ইউনিয়নের বাছট বৈলতলা মোকদমপাড়া হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার শিশু এবং পাশের গ্রামের দুস্থ মানুষদের মাঝে ঈদের উপহার হিসেবে ১০০ বস্তা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন র‌্যাব-৪ এর সিপিসি-২ কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জমির উদ্দিন আহম্মেদ এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়ার এএসপি উনু মং।

এ সময় সাঁটুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন পিন্টু, গণপুর্ত মন্ত্রনালয়ের ইঞ্জিনিয়ার আবুল বাশার, সবুজ পরিবেশ আন্দোলনের মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রাজ্জাক হোসাইন রাজ, বাছট বৈলতলা মোকদমপাড়া হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার মোহতামিম হাফেজ ক্বারী আব্দুর রহমান, ক্যাশিয়ার তোফাজ্জল হোসেন মেম্বার, সমাজ কল্যান সম্পাদক দুলাল হোসেন,সহ-সভাপতি শামসুর রহমান পিন্টু এবং বাছট বৈলতলা পল্লীমঙ্গল সমিতির সভাপতি আব্দুর রহমান বিশ্বাস,ক্যাশিয়ার মুজিবর রহমানসহ এলাকার গণ্যমান্য লোকজন এবং তরুন সমাজ উপস্থিত ছিলেন।

র‌্যাব-৪ অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক মুঠোফোনে বলেন, “আড়াই মাস ধরে প্রতিনিয়ত মাঠে ময়দানে, রাস্তাঘাটে সরেজমিনে উপস্থিত থেকে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমের পাশাপাশি অসহায় মানুষের পাশে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে দাঁড়িয়েছিলাম”।

করণা যোদ্ধা মোজাম্মেল হক আরো বলেন, “গতকালও বাছট বৈলতলা মোকদমপাড়া হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার শিশু এবং পাশের গ্রামগুলোর দুস্থ মানুষদের মাঝে ঈদের উপহার দেয়ার জন্য আমার নিজের উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু গত বুধবার রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে আমি করোনার পরীক্ষার নমুনা দিয়েছিলাম। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পরীক্ষার রিপোর্টে আমার করোনা পজিটিভ আসে। তাই আমি নিজে ঈদ উপহার বিতরণের জন্য যেতে না পেরে আমাদের দুইজন অফিসারসহ টিম পাঠিয়েছিলাম। সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে আমি আবার দ্রুতই করোনাযুদ্ধে ফ্রন্টলাইন ফাইটার হিসেবে জনগণের পাশে থেকে কাজ করতে চাই।’

দুস্থদের সাহায্যে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, র‌্যাব সাধ্যমতো মানবিক সাহায্য প্রদান করে আসছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এটি অব্যাহত থাকবে।

এর আগে গত ২৬ এপ্রিল ফেসবুকের পোস্ট থেকে জেনে বাছট বৈলতলা মোকদমপাড়া হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার হেফজ বিভাগের সব শিশু এবং তাদের পরিবারের জন্য খাদ্যসামগ্রী পাঠিয়েছিলেন তিনি।