কতদিন লকডাউন চালাতে হবে, জানালেন বিশেষজ্ঞ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৪:৪৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৬, ২০২০ | আপডেট: ৪:৪৮:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৬, ২০২০

করোনাভাই,রাসে,র সংক্রমণ ঠে,কাতে সারা বিশ্বেই ল,কডাউনে চল,ছে। লকডাউনে,র কারণে গৃহবন্দী থেকে মানু,ষ এখন বিরক্ত। এ থেকে মুক্তি,র অপেক্ষায় এখন দেশে,র মানুষ। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ বিষয়ে জানিয়েছে বিশ্বখ্যাত ভাইরোলজিস্ট ইয়ান লিপকিন। তার মতে, মানুষ বুঝতে পারছেন না কবে এই বন্দী দশা শেষ হবে। কিন্তু এরও উপায় আছে।

ভাইরোলজিস্ট ইয়ান লিপকিন বলেন, ‘করোনার সঙ্গে লড়তে গেলে এই লকডাউন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তার সঙ্গে জরুরি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। ব্রাজিল এক্ষেত্রে গাফি,লতি করে সর্বনাশ ঘটিয়ে,ছে। ফলে বিন্দুমাত্র গাফি,লতি চরম সর্বনাশ ডেকে আন,তে পারে।’

তাহলে ল,কডাউনে,র সমাধান কী? এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একমাত্র পূর্ণ ল,কডাউনই, লকডাউন থেকে বেরোনোর রাস্তা। এজন্য বিজ্ঞানের রাস্তায় হাঁটতে হবে। গবেষক, চিকিত্‍সক, বিজ্ঞানীরা যা বলছেন তা মেনে চলতে হবে। নির্দিষ্ট দিন মেনে নয় বরং ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণের জন্য ভ্যাকসি,ন বের না হওয়া পর্যন্ত চালাতে হবে। আর সে পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে। যতদিন পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে, ততদিন কোনোভাবেই লকডাউন তুলে নেওয়া যাবে না।’

গরিব মানুষদে,র পক্ষে সোশ্যাল ডিসট্যান্স মানা বা লকডাউন মেনে বাড়িতে বসে থাকা সম্ভব নয়। মানতে গেলে অনাহারে ম,রতে হবে। তাই সরকারে,র উচিত তাদের দিকে ন,জ,র দেওয়া বলে জানালেন ই,য়ান লিপকিন।

এদিকে, জাতিসংঘ ম,হাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসও জানিয়েছেন, যতদিন না করোনাভাইরাসে,র ভ্যাকসিন বা ওষুধ বের হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত স্বাভাবিক জীবনে ফে,রা উচি,ত নয়। একমাত্র কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিনই পারে বিশ্বকে স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফেরাতে।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, চলতি ২০২০ সালের মধ্যেই করো,নাভাইরাসের ভ্যাকসিন বে,র করে ফেলতে পারবে,ন বিজ্ঞানীরা।