ওদের হাতেই আশার মশাল, স্বচ্ছলদের এগিয়ে আসার আহ্বান

প্রকাশিত: ১:১৮ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২০ | আপডেট: ৭:৩১:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২০

”ঘরে খাবার নেই। চিন্তার অন্ত ছিল না কিভাবে চলবে সামনের দিনগুলো। এলাকার ছেলেপুলে ঘরে এসে নিত্যপন্য দিয়ে গেল। আমি ওদের মঙ্গল কামনা করি।”

কথাগুলো বলছিলেন বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বারপাইকা গ্রামের কামাল মোল্লা। করোনার প্রভাবে দিনমজুর এই মানুষটি কাজ হারিয়েছেন। তাই তার পাশে দাড়িয়েছে তরুনদের সেচ্ছাসেবী সংগঠন বিগ ফাউন্ডেশন।

কারোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করার পর বাংলাদেশের অন্য এলকার মত সবকিছু স্থবির হয়ে যায় বারপাইকা গ্রামের। এতে মহাবিপদে পড়ে ওই এলাকার গরীব ও খেটে খাওয়া মানুষ। অনেকেই না খেয়ে দিন কাটাচ্ছিলেন।

এমন পরিস্থিতিতে গরীব মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য উদ্যোগ গ্রহন করে ওই এলাকার তরুণদের সংগঠন বিগ ফাউন্ডেশন। তারা নিজেদের উদ্যোগে টাকা সংগ্রহ করে ২১ ও ২২ এপ্রিল এলাকার হত দরিদ্র-দিনমজুর শতাধিক পরিবারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করে।

প্রত্যেক পরিবারকে ৬ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেটি পিয়াজ, ১ লিটার তেল, ১ কেজি লবন, ১ টি সাবান দেয় সংগঠনটি। পাশাপাশি প্রতি পরিবারকে প্রয়োজনীয় প্রাথমিক ঔষধ প্রদান করে তারা।

এর আগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এলাকার প্রায় ৩৫০ পরিবারের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড গ্লোভস এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজ বিতরণ করে সেচ্ছাসেবী সংগঠনটি।

সংগঠনটির সভাপতি সোহাগ শাহ্ বলেন, “করোনার এই সময়ে সবচেয়ে বিপদে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। আমরা সধ্যমত চেষ্টা করছি আমাদের এলাকার মানুষেরর পাশে দাড়াতে। আমরা নিজেদের পয়সায় ও উদ্যোগে এই কাজটি করছি। আশা করি সামাজের বিত্তবানরা গরীবদের সহযোাগিতা করবেন।। যার যার এলাকায় সাধারণ মানুষের পাশে দাড়াবেন তারা।”

উল্লেখ্য বিগ ফাউন্ডেশন একটি সেচ্ছাসেবা সংগঠন। ২০১৫ সাল থেকে সংগঠনটি বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক যথা শিক্ষা বৃত্তি, স্বাস্থ্য সহায়তা, বৃক্ষ-রোপণ, শীত-বস্ত্র বিতরণ এবং বিভিন্ন দূর্যোগ মূহুর্তে ত্রান বিতরণ সংক্রান্ত কর্মকান্ড করছে।