মাদারীপুরে পুলিশের সাড়াশি অভিযানে তিন ডাকাত আটক

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:০১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২০ | আপডেট: ১১:০১:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২০

তপেজ খাঁ, স্টাফ রিপোর্টার

ডাকাতির ঘটনায় সংঘবদ্ধ তিন ডাকাতকে আটক করে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ। মাদারীপুর সদর উপজেলার কুনিয়ান ইউনিয়নের ভরুয়াপাড়া গ্রামের এক রংমিস্ত্রীর বাড়ীতে বুধবার রাতে দুর্ঘষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লার সাড়াশি অভিযানে তিন ডাকাতকে আটক করা হয়। এলাকাবাসি দাবী, করোনাভাইরাসের প্রভাবে এলাকায় আতঙ্কের সুযোগে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।
পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার জানান, বুধবার গভীর রাতে কুনিয়া ইউনিয়নের ভরুয়াপাড়া গ্রামের রংমিস্ত্রী ইসমাইল হাওলাদারের ঘরের দরজা ভেঙ্গে একদল সঙ্গবদ্ধ ডাকাত দল প্রবেশ করে। পরে অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে নগদ অর্থ, স্বণালঙ্কার, মোবাইল সেটসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় মাদারীপুর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে। পরে ইসমাইল হাওলাদারের তথ্য মতে, বদরুল আলম মোল্লার সাড়াশি অভিযানে একজনকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে আরো দুই জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলেন, মস্তফাপুর ইউনিয়নের চতুরপাড়া গ্রামের কাদের খানের ছেলে ইউসুব খান, নয়াকান্দি বাজিতপুর এলাকার সেকেন বেপারীর ছেলে বাচ্চু বেপারী ও একই এলাকার খাদেম বয়াতীর ছেলে জাকির হোসেন বয়াতী। এদের বিরুদ্ধে ইসমাইল হাওলাদার বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় ডাকাতি মামলা দায়ের করেছে। পরে বৃহস্পতিবার তাদের মাদারীপুর আদালতে প্রেরণ করেছে।
এব্যাপারে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা জানান, ‘বাদীর তথ্যনুসারে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিষয়ে আদালতে রিমান্ড চাওয়া হবে। যদি রিমান্ডে নেয়া যায়, তাহলে ক্ষয়ে যাওয়া মালামাল উদ্ধার করা যাবে।’