‘নারীর ক্ষমতায়নের পদক্ষেপে প্রধানমন্ত্রী ২০টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন’ —আমির হোসেন আমু এমপি

প্রকাশিত: ৬:৪৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০ | আপডেট: ৬:৪৪:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০

আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও শিল্পমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, আমির হোসেন আমু এমপি বলেছেন, দরিদ্রতা কি তা বাংলাদেশের জনগণ ভুলে যেতে বসেছে। উন্নত দেশের জনগণের চিন্তাধারাও উন্নত হচ্ছে। নারীর ক্ষমতায়নে বিচারাঙ্গন ও সচিবালয়ে মহিলা কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। নারীদের পক্ষে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিকভাবে ২০টি পুরস্কার পেয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় ঝালকাঠী সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে নারীদের হাঁস-মুরগী ও গাভী পালন প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেছেন।জেলা প্রশাসক মোঃ জোহর আলী’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন, ঝালকাঠি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি সরদার মোঃ শাহ আলম, সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল­াহ পনির, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান, নলছিটি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, গ্লোবাল রুরাল এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি জেনারেল সেক্রেটারী মোঃ রাহাত খান, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ আলতাফ হোসেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আমির হোসেন আমু এমপি বলেন, ইতিহাস তার নিজ স্থানে ফিরে এসেছে। আওয়ামীলীগ সরকারের সময়েই মুজিব শত জন্মবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালিত হতে যাচ্ছে। ইউনে¯ো‹ার সিদ্ধান্তে ১৯৫টি দেশে একযোগে মুজিব শত জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। এটিই বাঙালি জাতির জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি। তিনি আরো বলেন, এ দেশ হাওয়ায় ভেসে আসেনি। এজন্য জাতির পিতাকে ২৩ বছর কারাবরণ করতে হয়েছে। তাই মুজিব বর্ষে গবেষণামুলক নতুন নতুন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে উন্নত দেশ ও আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করে জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়নে জন্য সরকার নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। নারীদের গবাদি প্রাণি পালন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রশিক্ষিত করে তাদের ক্ষুদ্র ঋণ প্রদানের পরিকল্পনা রয়েছে। যাতে তারা স্বাবলম্বী হয়ে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখতে পারে। তাহলে আমদানি নির্ভর বাংলাদেশ দেশের উৎপাদিত পণ্য রপ্তানী করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে স্বয়ং সম্পুর্ণতা অর্জন করতে পারবে। নারীরা স্বাবলম্বির পাশাপাশি দেশের অর্থনীতির চাকাকে আরো স্বচ্ছল করতে পারবে। এসময় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে কম্পিউটার রিপেয়ারিং এন্ড সার্ভিসিং কোর্স সম্পন্নকারী ৩০জনের ১৫ জনকে সনদ প্রদান করেন তিনি।