নতুন আতঙ্ক করোনা ভাইরাসের উৎস বিষধর সাপ!

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২০ | আপডেট: ১০:১০:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

আন্তর্জাতিক মহলে উদ্বেগ বাড়িয়ে চীনের বাইরে ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাই*রাস। নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪১ জনে দাঁড়ি*য়েছে। এছাড়া নতুন এই ভাইরাসে দেশটিতে আ*ক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজা*র *ছাড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সা*মনে এসেছে আশ্চর্যজনক এক তথ্য। চীনের দুই প্রজাতির সাপ থেকেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে প্রকাশিত হয়েছে এ*কটি প্রতিবেদন। সেই প্রতিবে*দন অনুযায়ী, চীনস*হ বি*ভিন্ন দেশে করোনা ভাই*রাস ছড়িয়ে পড়ার মূল উৎস*ই হচ্ছে বিষধর চীনা সাপ ক্রেইট এ*বং কোবরা সাপ। করোনা ভাইরাস বা*তাসে মিশে প্রাথমি*কভাবে স্তন্যপায়ী প্রাণী এবং পাখির শ্বাসযন্ত্রে সংক্রমণ করে। এর ফলে প্রাথমিকভাবে জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্ট উপসর্গ হিসেবে দেখা দেয়। এর আগে ২০১৯ সালে চীনের হুয়ান শহরে প্রথম ক*রোনা ভাইরাসের বিষয়টি সা*মনে আসে। যা খুবই দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।
তবে এবারের পরিস্থিতি ভয়া*বহ। এই পরিস্থিতিতে জরুরি বৈঠকও ক*রেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র (WHO) বিশেষ ক্ষমতাপ্রাপ্ত বিশেষজ্ঞদের একটি কমিটি। চীনা ভা*ইরাসের বিস্তারের জেরে বিশ্বে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জ*রুরি অবস্থা জারির মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে কিনা, সে বিষ*য়েও শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

উল্লেখ্য, গত দশকে মাত্র পাঁচবার বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য জরুরি অব*স্থা জরুরি মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল।

চীনা ভাইরাসের বিস্তার যে উদ্বেগজনক, তা স্বীকার করে নিয়েছেন বি*শ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা*র মহাসচিব তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসাস। উ*দ্ভূত পরিস্থিতিকে জটিল এবং উদ্বেগজনক আখ্যা দিয়েছেন তিনি। বুধবার সংবাদমাধ্যম*কে তিনি জানিয়েছিলেন, ‘এই বিষয়ে আমি খুব*ই গুরুত্ব দি*য়ে দেখছি। সমস্ত তথ্যপ্রমা*ণ যাচাই করে প*রিস্থিতি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

কীভাবে এই করোনা ভাইরা*স মানুষের মধ্যে ছড়ি*য়ে পড়ল, WHO চীনা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাঁ*ধে কাঁধ মিলিয়ে তার ত*দন্ত করে দেখছে ব*লেও জানিয়ে*ছিলেন তিনি।