মাদারীপুরে সড়ক যেন ইট বালির দোকান

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১:৫৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২০ | আপডেট: ৮:৩৫:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২০

মাদারীপুরের আঞ্চলিক মহাসড়কের দুপাশেই গড়ে উঠেছে পরিকল্পনা বিহীন ইট বালি,খোয়া, গাছ, কাঠ ও পাথর ব্যবসা। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনেই সরকারি রাস্তার ফুটপাতে বিক্রি হচ্ছে ইট, বালু,খোয়া।
অনুসন্ধানে দেখা গেছে শুধু আঞ্চলিক মহাসড়কই নয় পৌর শহরের প্রতিটি সড়কেই ইট বালি দিয়ে রাস্তার বেহাল দশা করে রেখেছে। কেউ বাড়ি নির্মান করছেন, কেউ ব্যবসা করছে অনেকেই আবার তার ঠিকাদারি কাজের জন্য মালামাল রাখার জায়গা হিসেবে রাস্তাই ব্যবহার করছে। রাস্তার উপর এসব মালামাল রাখার কারণে ভোগান্তিতে পড়ছে সাধারণ মানুষ, এছাড়াও বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা। ধুলো বালি তে নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ, বাড়ছে শ্বাসকস্ট সহ নানা ধরনের অসুখ ।
সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খানের বাড়ির সামনের আঞ্চলিক মহাসড়কের দুপাশে একই চিত্র ইট,বালি কাঠ, গাছের কারণে বেহাল দশা হয়েছে সড়কের । এ যেন দেখার কেউ নেই।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কার্যালয়ের সামনের রাস্তায় মিন্টু নামে এক ঠিকাদার রাস্তা জুড়ে ফেলে রেখেছে পাথর যার কারণে সে স্থানে যানযট সৃষ্টি হয়েছে। এই দৃশ্য এখানেই শেষ না, হরিকুমারিয়া, ২ নং শকুনি, পাঠককান্দি, আমিরাবাদ, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে, নতুন বাসস্ট্যান্ড, শহরের প্রায় প্রতিটি এলাকায় এরকম দৃশ্য দেখা যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে পৌর মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পৌর শহরকে পরিস্কার পরিছন্ন রাখার খুব চেষ্টা করি কিন্তু আমি একা পারিনা। জেলা প্রশাসক যদি আমাকে সাহায্য করতো তাহলে এ সমস্যাটা থাকতো না।
তাছাড়া জনগণের কিছু দায়িত্ব রয়েছে তাদেরকেও সচেতন হতে হবে।