ওরা অধম হলে আমরা উত্তম হবো না কেন–আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ

আরিফ হোসেন আরিফ হোসেন

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৩৭:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির আহবায়ক (মন্ত্রী) ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ (এমপি) বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি কথা বলেছেন‘ওরা অধম হলে আমরা উত্তম হবো না কেন’। তাই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ১৫ বছর ক্ষমতায় থেকেও লুটপাটের রাজনীতি করে না। বিএনপি-জামায়াতের আমলে দেশে কেউ শান্তিতে ঘুমাতে পারেনি। প্রকাশ্যে হত্য, ধর্ষনের মত জঘন্য কর্মকান্ড চালিয়েছে তারা। দেশের মানুষ আজ বুজতে পেরেছে উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে হলে আওয়ামী সরকারের বিকল্প নাই। আপনারা বেঁচে থাকলে দেশে অনেক প্রধানমন্ত্রী দেখতে পারবেন তবে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রী আর একটাও পাবেন না। দেশের সুনাম ধরে রাখতে হলে নেতাকর্মীদের একতাবদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। আর প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হলে তৃনমূল থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। দক্ষিনাঞ্চলের দৃশ্যমান উন্নয়নের কথা তুলে ধরে তিনি আরোও বলেন, বিএনপি জামায়াত আসলে এ অঞ্চলের উন্নয়ন হয়না। একমাত্র আওয়ামী সরকারই এ অঞ্চলের উন্নয়নের কথা চিন্তা করে”।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি কাজী ইমদাদুল হক দুলালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এসএম সরদার খালেদ হোসেন ও যুগ্ম-সম্পাদক মোস্তফা কামাল চিশতি’র যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.তালুকদার মোঃ ইউনুস ও জেলা সদস্য সেরনিয়াবাত আশিক আবদুল্লাহ। এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের নেতা ইতিহাসবিদ সিরাজ উদদীন আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহিনুল ইসলাম সিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মৃধা মুহাঃ আক্তার উজ জামান মিলন, অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান সোহেল, বাবুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ আজাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাব প্রমুখ।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে পরবর্তীতে নতুন কমিটির নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানান সম্মেলনের প্রধান অতিথি বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি।