আমি চাই আলুর দাম আরও বাড়ুক: কৃষিমন্ত্রী

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:১২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০১৯ | আপডেট: ১১:১২:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০১৯

এবার বাংলাদেশে চাহিদার চেয়ে বেশি আলু উৎপাদনের তথ্য জানিয়ে এই খাদ্যপণ্যের দাম আরও বাড়ার পক্ষে মত দিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। সারের দাম কমানো নিয়ে আজ ৪ ডিসেম্বর বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

এদিকে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে যখন মানুষ ধুঁকছে তখন আলু, চালসহ কয়েকটি পণ্যের দাম বেড়েছে। শীতকালীন সবজিও অন্যান্য বছরের তুলনায় এখনও বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে সরকার বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে কি না, সে প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘কাঁচাবাজার যেটা পচনশীল, চাল ছাড়া বেশিরভাগই পচনশীল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা এই র‌্যা’­ব-পু’লিশ দিয়ে কোন দিনই বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। এটা মা’র্কেট ফোর্স এবং বাজারের যে শক্তি সেটাই নিয়ন্ত্রণ করবে। শুধু মনিটরিং করা সব দেশেই কমিটি আছে প্রতিষ্ঠান আছে তেমনভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না, চাহিদা ও সরবরাহের উপর নির্ভর করে।’

এ সময় বাজারে পণ্যের দাম বাড়ার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইল তিনি বলেন, ‘এ প্রশ্নের উত্তর দেওয়া খুব কঠিন। সব জিনিসের দাম বেড়েছে এটা ঠিক না। ভোজ্যতেলের দাম বাড়েনি, সব কিছুই সহনশীল পর্যায়ে রয়েছে| পেঁয়াজটাই একটা অসহনশীল পর্যায়ে কোন ক্রমেই এ দাম গ্রহণযোগ্য নয়।’

এ সময় বাজারে আলুর দাম বৃদ্ধির কারণ জানতে চাইলে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘আলুর দাম বেড়েছে, আমি চাই আলুর দাম আরও বাড়ুক। এক কোটি ১০ লাখ টন আলু হয়েছে আমাদের, দরকার ৭০ থেকে ৮০ লাখ টন। দাম বেশি না হলে সামনে বছর আলু চাষ হবে না।’

এদিকে প্রায় সারা বছরই আলুর দাম কেজিপ্রতি ২০ টাকা বা তার নিচে থাকলেও এখন বাজারে নতুন আলু ওঠার সঙ্গে সঙ্গে পুরানো আলুর দাম বেড়ে ৩০ টাকা হয়েছে। এমন সময়ে আলুর দাম বেড়েছে যখন কৃষক নতুন আলু তুলছে, পুরানো আলু ব্যবসায়ীদের হাতে বলে বাজার সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

বাজার মূলত চাহিদা ও সরবরাহের উপর নির্ভর করে এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বা র‌্যা’­ব-পু’লিশ দিয়ে কোনো দিনই বাজার নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না বলে মন্তব্য করেন কৃষিমন্ত্রী।-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম