শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের চাবিকাঠি…. শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৯ | আপডেট: ৫:২০:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৯

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ২০১৯ সালে শার্শা উপজেলার বেসরকারি চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও
ভুক্তকরণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (৩ নভেম্বর) সকাল ১০ টার সময় শার্শা উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

শার্শা উপজেলার নির্বাহি অফিসার পুলক কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন।

এমপিওভুক্তকরণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চারটি হলো,
সেতাই এসিআই মাধ্যমিক বিদ্যালয়,কুদলার হাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, শিকারপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও রহিমপুর আলিম মাদ্রাসা।

এসময় প্রধান অতিথি বলেন,শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের চাবিকাঠি। উন্নয়নকে গতিশীল এবং টেকসই করতে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। গত ১০ বছরে প্রাথমিক শিক্ষা,মাধ্যমিক শিক্ষা,কারিগরি শিক্ষা,মাদ্রাসা শিক্ষা এবং উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্য আজ আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি,ঝরে পড়া রোধ,শিক্ষার প্রসার,বাল্যবিবাহ রোধ,নারীর ক্ষমতায়ন,আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে মেয়েদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধিসহ সমতা বিধানের লক্ষ্যে সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনীর আওতায় উপবৃত্তিসংশ্লিষ্ট প্রকল্পগুলো ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হচ্ছে। অন্যদিকে ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে শিক্ষা মন্ত্রণালয় উপবৃত্তির টাকা অনলাইনে প্রদান করেছে। মেধাবৃত্তির আওতায় প্রাথমিক থেকে স্নাতকোত্তর শ্রেণী পর্যন্ত মেধা ও সাধারণ বৃত্তি,সংখ্যালঘু সম্প্রদায়,উপজাতি উপবৃত্তি, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী,প্রতিবন্ধী (দৃষ্টি ও অটিস্টিক ছাড়া) ও অটিস্টিক উপবৃত্তি এবং পেশামূলক উপবৃত্তিবিষয়ক ৩টি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন মেয়াদে বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। বর্তমান সরকারের সাহসী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষার প্রসঙ্গটি সর্বাগ্রে।

বর্তমান সরকারের সাহসী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষার প্রসঙ্গটি সর্বাগ্রে। প্রাথমিক শিক্ষাকে পাশ কাটিয়ে কোনো শিক্ষার প্রসঙ্গ চিন্তা করা যায় না। এ সত্যকে ধারণ ও লালন করে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু ৪৪ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। গত ১০ বছরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন শ্রেণীকক্ষ নির্মাণ করা হয়েছে ৩৬ হাজার। শিশুদের মধ্যে ডিজিটাল পদ্ধতির শিক্ষা কার্যক্রম বিস্তার ঘটানোর লক্ষ্যে বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর সরবরাহ করা হয়েছে।

এমপিও ভুক্তি ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা শিক্ষা অফিসার হাফিজুর রহমান চৌধুরী ।

এ সময় আরও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুজ্জামান,যশোর জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দৌলা অলোক সরদার,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, যশোর জেলা পরিষদের সদস্য ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল ও সালেহ আহম্মেদ মিন্টু,পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল,সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন,বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রহমান,শার্শার ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন,বাগআচড়াঁ ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ কবির বকুল,কায়বার ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ টিংকু, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামান সহ অন্যান্য চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সর্দার সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রাসেল ,সাংগঠনিক সম্পাদক আল-আমিন রুবেল ও উক্ত এমপিওভুক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ,প্রধান শিক্ষকগণ ও শিক্ষক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন