রাতে সর্বাঙ্গীণ ত্বকের যত্ন নেওয়ার সঠিক নিয়ম

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৯ | আপডেট: ৭:১৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৯

সর্বাঙ্গীণ ত্বকের যত্ন নেয়ার সঠিক নিয়ম সকালে ঘুম থেকে উঠে ভাল করে মুখ পরিষ্কার করা, তারপর স্নান সেরে ময়শ্চারাইজার লাগানো, রোদে বাইরে বেরনোর ২০ মিনিট আগে নিয়ম মেনে সানস্ক্রিন, সপ্তাহে তিনদিন শ্যাম্পু ও কন্ডিশনিং নিজেকে ভাল রাখতে আরও কত সাধ্য সাধনা। মোটামুটি মিলে যাচ্ছে তো! কিন্তু রাতে শুতে যাওয়ার আগে?

সারাদিনের ধুলো, ময়লা, ধোঁয়, দূষণ, কড়া রোদ আর কেমিক্যালযুক্ত কসমেটিক্সের প্রভাবে ত্বক ও চুলের করুণ অবস্থা হয়। তার ওপর নিত্যনৈমিত্তিক স্ট্রেসের ভূমিকাও তো কম নয়। সবকিছুর মোকাবিলায় দিনের শেষে প্রয়োজন ত্বক ও চুলের বিশেষ পরিচর্যার।

দিনের রূপচর্চার চেয়েও রাতের রূপচর্চা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমাদের ঘুমের সময়টাতেই সারাদিনের ক্লান্তি, স্ট্রেস, দূষণের প্রভাব ইত্যাদি কাটিয়ে ওঠে ত্বক। তাই ত্বক সুস্থ রাখার জন্য সঠিক যত্ন নেয়াটাও জরুরি। রাতে আমাদের ত্বক সঠিক বিশ্রাম ও যত্ন পেলে সতেজ হয়ে ওঠে দ্রুত।Image result for ত্বকের যত্ন

রাতে একটানা গভীর ঘুম হওয়া জরুরি। তারচেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত দু’ ঘণ্টা আগে টিভি, মোবাইল, কম্পিউটার স্ক্রিনের চড়া আলো থেকে দূরে থাকা। স্ক্রিন থেকে প্রতিফলিত চড়া আলো ত্বকের স্বাস্থ্যের পক্ষে ঠিক কতটা ক্ষতিকারক। সচেতন না হলে কিন্তু সময়ের আগেই বুড়িয়ে যাবে বিশেষ করে মুখ, গলা আর চোখের চারপাশ।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে গল্প করুন, বই পড়ুন কিন্তু ফোন বা ল্যাপটপ খুলবেন না। সারাদিন প্রচুর পানি পান করুন। তবে রাতের দিকে বেশি পানি খাবেন না তাতে নিশ্চিন্ত ঘুম বাধাপ্রাপ্ত হয়। ঘুমের সময় কিন্তু আপনার ত্বকও ‘রিপেয়ার মোড’-এ থাকে, তাই যত নিশ্চিন্তে ঘুমোবেন, তত ভিতর থেকে সেরে উঠে ঝলমল করবে ত্বক।Image result for ত্বকের যত্ন

রাতের বেলা ব্যবহারের জন্য একটু ভারী ক্রিম বা প্রডাক্ট বেছে নিতে পারেন। মনে রাখবেন, যত আর্দ্র থাকবে আপনার ত্বক, তত স্থিতিস্থাপকতা বজায় থাকবে। বলিরেখাও পড়বে না। রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখ পরিষ্কার করে ধুয়ে নেবেন।

কোল্ড প্রেসড ভার্জিন অলিভ বা নারিকেল তেল ত্বকের মেকআপ তোলার জন্য খুব ভালো, ইদানীং মিসেলার ফেস ওয়াইপ ব্যবহারের চলও হয়েছে। তবে অ্যালকোহল বা সুগন্ধিযুক্ত ফেস ওয়াশ ব্যবহার না করলেই ভালো হয়। মুখ ধোয়ার পর উষ্ণ তোয়ালে রাখুন মুখের উপর- ত্বক আর্দ্রতা ও উষ্ণতা শুষে নেবে। তারপর ব্যবহার করুন আপনার প্রিয় কোনো ময়েশ্চারাইজার।

রাতের বেলায় কিছু কিছু অ্যান্টিঅক্সিডান্ট একদমই কাজ করে না। আপনি যদি ভিটামিন সি ক্রিম ব্যবহারে অভ্যস্ত হন, তাহলে সেটা না বদলে উপায় নেই, কারণ রাতের অন্ধকারে তা মোটেই কাজ করবে না। রাতের জন্য তাই বেছে নিন ভিটামিন ই সমৃদ্ধ ক্রিম।Related image

ত্বকের যত্নে সবচেয়ে ভালো খাবার:
অ্যাভোকাডো: এটি একটি উন্নতমানের স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্য হিসেবে বিবেচিত। অ্যাভোকাডো ব্যাপক পরিমাণে ভিটামিন ই উপাদানে সমৃদ্ধ। এই উপাদানটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। এটি ত্বকে বয়সের ছাপও দূর করতে সহায়তা করে।

গ্রিন টি: এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্ষমতার কথা আমাদের সবার জানা। গ্রিন টি কেবল আমাদের শারীরিকভাবেই ফিট রাখে না, এর পলিফেনলস ত্বকের ক্ষতিসাধনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। সেই সঙ্গে এটি ত্বকে বয়সের ছাপ দূর করে।

মাংস: এটি কানায় কানায় জিঙ্ক উপাদানে ভরপুর। জিঙ্ক ত্বকের কোলাজেন লেভেল নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এছাড়া মাংস ত্বককে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে।Related image

বাদামী চাল: এটি ত্বকে পড়া বয়সের ছাপ দূর করতে না পারলেও নমনীয়তা রক্ষা করে। কারণ এটি সেলেনিয়ামে ভরপুর।

গাজর: এটির উপকারিতা নিয়ে কারও প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই। গাজর প্রচুর পরিমাণে বেটা-ক্যারোটিন উপাদানে সমৃদ্ধ। এই উপাদানটি আবার শরীরে প্রবেশ করে ভিটামিন এ’তে পরিণত হয়। যা ত্বকের কোষ বৃদ্ধি ও মেরামতে সাহায্য করে।

ত্বকের যত্নে বেসন:
তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের প্রকোপ দেখা যায় বেশি। এছাড়া ধুলাবালি জমে লোমকূপ আটকে সৃষ্টি হয় ব্ল্যাকহেডস। তাই তেলতেলে ত্বকের চাই নিয়মিত যতœ। ত্বকের তেলতেলে ভাব কমানোর জন্য যা করবেন।

দই ও বেসন: তিন টেবিল চামচ টক দই ফেটিয়ে নিন ভালো করে। দুই টেবিল চামচ বেসন মিশিয়ে আবার ফেটান। মসৃণ পেস্ট তৈরি হলে পরিষ্কার ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার কিংবা দুইবার ব্যবহার করতে পারেন।
বেসন ও হলুদ: এক চা চামচ হলুদ গুঁড়ার সঙ্গে এক টেবিল চামচ বেসন মেশান। প্রয়োজন মতো পানি মিশিয়ে তৈরি করুন পেস্ট। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার ব্যবহার করতে পারেন। হলুদ ত্বক পরিষ্কার করে ভেতর থেকে। বেসন দূর করে তেলতেলে ভাব। ফলে ত্বক হয় উজ্জ্বল ও সুন্দর।Related image

টমেটো ও বেসন: একটি মাঝারি সাইজের টমেটো চটকে পেস্ট করে নিন। পরিমাণ মতো বেসন মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

বেসন ও চিনি: ত্বকের মরা চামড়া দূর করতে কার্যকর এই ফেসপ্যাক। দুই টেবিল চামচ বেসনের সঙ্গে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এক টেবিল চামচ মোটা দানার চিনি মিশিয়ে ত্বকে ঘষে ঘষে লাগান মিশ্রণটি। পাঁচ থেকে আট মিনিট ম্যাসাজ করার পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তথ্য: বোল্ডস্কাই

লাবণ্যময় ত্বকের যত্নে মধু:
মধু ও লবণ-মধু ও লবণ একসাথে মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসেজ করুন লবণ না গলে যাওয়া পর্যন্ত। এই প্যাকটি আপনার ত্বককে নরম করবে।
মধু ও চিনি-৩ চামচ মধুর সাথে ২/৩ চামচ চিনি মিশিয়ে নিন তারপর মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ম্যাসেজ করুন এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।Related image
মধু ও লেবু-পরিমাণ মতো মধু নিয়ে তাতে সামান্য পরিমানের লেবুর রস মিশিয়ে নিন। মুখ ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন তারপর এই প্যাকটি লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। মধু ও লেবুর মিশ্রন ত্বকের বলিরেখা ও ব্রন রোধ করে।
মধু ও চন্দনগুঁড়ো-একটি কাপে ১/২ চামচ মধু নিয়ে তার সাথে ৪ চামচ চন্দনগুঁড়ো মিশিয়ে ভারী পেস্ট অইরি করুন। এই পেস্টটি পুরো মুখে লাগিয়ে নিন চাইলে গলায়, ঘাড়েও লাগাতে পারেন। না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক আপনার ত্বক নরম ও উজ্জ্বল করবে।
মধু ও টমেটো-টমেটো পেস্ট এর সাথে পরিমাণ মতো মধু মিশিয়ে নিন। মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
মধু ও বেসন-১/২ চামচ বেসনের সাথে মধু মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। মুখে লাগিয়ে পুরোপুরি শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর সামান্য পানি দিয়ে ত্বক ভিজিয়ে স্ক্রাব করুন তারপর পুরো মুখ ধুয়ে ফেলুন। তথ্যঃ beautyglimpse.com