মেনন সাহেবের উচিত হবে সহধর্মিনীকে নিয়ে সংসদ থেকে পদত্যাগ করা : মেয়র সাদিক

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:২৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯ | আপডেট: ৮:৩৪:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক :: জনগণ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারেনি বলে সাবেক মন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন যে অভিযোগ করেছেন, তাকে দুঃখজনক হিসেবে আখ্যায়িত করে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল­াহ বলেছেন, মেনন মন্ত্রী হলে কি এ কথা বলতে পারতেন? তিনি আরও বলেন, যদি মহান সংসদ নিয়ে তার প্রশ্ন থাকে তাহলে নীতি নৈতিকতার দিক দিয়ে তার উচিত হবে সহধর্মিনীকে (সংরক্ষিত আসনের এমপি) সাথে নিয়ে সংসদ থেকে অবিলম্বে পদত্যাগ করা।

রবিবার বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের ১ ও ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

২৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কাউন্সিলর ফরিদউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের সম্মুখে বিকেলে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে মেয়র সাদিক আবদুল­াহ আরো বলেন, মাদক, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করা হয়েছে। বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের আওতায় যতোগুলো ওয়ার্ড সম্মেলন হবে তাতে ভিন্ন দল থেকে আসা কাউকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতো পদে আসীন করা হবেনা।

যারা হাইব্রিড ও অপকর্মের সাথে জড়িত তাদের আওয়ামী লীগে ঠাঁই হবেনা। মেয়র বলেন, আমি মেয়র থাকি আর নাইবা থাকি প্রয়োজনে আমার বাড়ি বিক্রি করে সংগঠনের নেতাকর্মীদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা হবে। কিন্তু বিনা চিকিৎসায় কাউকে মরতে দেবোনা।

তিনি বলেন, আমি গডফাদার হতে রাজনীতিতে আসি নাই। আমার পূর্ব পুরুষেরা যেভাবে এদেশের মাটি ও মানুষের জন্য কাজ করেছেন আমিও তাঁদের একজন উত্তরসূরি হয়ে জনগনের সেবায় আমৃত্যু কাজ করে যাবো।

নিজের জীবনকে জনগনের জন্য উৎসর্গ করা হয়েছে উলে­খ করে সাদিক আবদুল­াহ আরো বলেন, বরিশালের জনগনই আমার পরিবার। সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে হবে। সংগঠন নেতাকেন্দ্রিক পরিচালিত হতে পারেনা। সংগঠন বেঁচে থাকলে আমরাও বেঁচে থাকবো। প্রধানমন্ত্রী যে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন তাতে কেউই পার পাবেনা। যেহেতু প্রধানমন্ত্রী কোন অপকর্মের দায় নেবেননা সেহেতু তার একজন কর্মী হয়ে আমিও কোন অপকর্মের দায় নেবোনা। সাধারণ মানুষের কল্যানে কাজ করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে যে শপথ নিয়েছি তা থেকে আমি কোনভাবেই পিছপা হবোনা।

আগামী নির্বাচনে কারো কাছে ভোট চাইতে যাবেন না পূর্বের দেয়া এ ঘোষনার পুনঃ উচ্চারন করে মেয়র বলেন, যদি জনগনের কল্যানে কাজ করি তাহলে জনগন তার মূল্যায়ন করবেন।

এদিকে উদ্ধোধক হিসেবে সম্মেলনের উদ্ধোধন করেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল। তিনি তার বক্তব্যে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে আরো শক্তিশালী করার আহবান জানান।

প্রধান বক্তা ছিলেন মহানগরের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আওয়ামী লীগের লোক হওয়া আর আওয়ামী লীগ করা এক কথা নয়। আমাদের আগে আওয়ামী লীগের লোক হতে হবে।

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইঞ্জিনিয়ার হেমায়েত উদ্দিন বাদশা, প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, অ্যাডভোকেট গোলাম সরোয়ার রাজিব, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, শ্রমিক লীগের পরিমল চন্দ্র দাস, মহিলা লীগের ফেরদৌসি জাহান মুন্নি, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আবুল বাশার সুমন, জসিম উদ্দিন, ছাত্রলীগের ইমরান মোল­া প্রমুখ।

সম্মেলনে বিসিসির ওয়ার্ড কাউন্সিলরবৃন্দ, মহানগর এবং ওয়ার্ড পর্যায়ের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।