ফিল্ম আমার স্বপ্ন, ফিল্ম আমার সাধনা – ইরা শিকদার

এ আল মামুন এ আল মামুন

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৭:৪৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৪৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৯

বিনোদন প্রতিবেদক: ইরা শিকদার শোবিজের উঠতি তারকা। একাধারে তিনি কাজ করছেন চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন মিডিয়ায়। বড়ো এবং ছোট দুই পর্দার বাসিন্দা হোলেও ইরার স্বপ্ন এবং সাধনা সবই ফ্লিম কেন্দ্রিক।

পাশাপাশি মিউজিক্যাল ফিল্ম এবং টিভিসিও করেছে কয়েকটি। অভিনয় করেছেন ডকুমেন্টরী ফিল্মেও।
কিছু দিন আগে তার অভিনীত “অন্তরে তুমি” নামের একটি ছবি সম্প্রতি সেন্সর সার্টিফিকেট পেয়েছে। ছবিটি পরিচালনা করেছেন এম,কে জামান। অসম প্রেমনির্ভর ও অ্যাকশনধর্মী এই ছবিটির কাহিনী ও সংলাপ লিখেছেন টিটোন মামা।

ইরা তার শোবিজ ক্যারিয়ার সূচনাকালীন প্রেক্ষাপট প্রসঙ্গে বলেন, “সরাসরি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আমার মিডিয়ায় আত্মপ্রকাশ। এটি ছিল ২০১৬ সালের কথা। অপূর্ব রানা পরিচালিত “পুড়ে যায় মন” ছবির মাধ্যমে আমার বড় পর্দায় অভিষেক। এরপর মিজানুর রহমান মিজান পরিচালিত “মিলন সেতু” ছবিতে দুর্দান্ত একটি আইটেম সং এ পারফর্ম করি আমি। এরপর একে একে “অন্তরে তুমি”, “আমার সিদ্ধান্ত”, “থাবা”, “দেশ আমার” ছবিতে নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করেছি। আমার অভিনীত আরেকটি ছবি খুব শিগ্রই সেন্সরে যাবে। তবে এটির নাম পরিবর্তন হতে পারে বলে এই মুহুর্তে নাম প্রকাশ করছি না।

তিনি আরো বলেন, “আমার অভিনীত প্রথম নাটকের নাম “হাফ প্যান্ট”। ডালিম মাহমুদ পরিচালিত এই নাটকটি বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত হয়েছিল। তবে ছোট পর্দায় মূলত আমার ব্যাস্ততা বাড়তে শুরু করে নাট্য পরিচালক এস এম দুলাল এর “নয় ছয় আনা লিমিটেড” ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করার পরে। আমি সহ সাতজন চলচ্চিত্র নায়িকা এক সাথে এই নাটকেে অভিনয় করেছিলাম। নাটকটি বৈশাখী টেলিভিশনে প্রচার হয়ে ছিলো। এছাড়াও আমার অভিনীত উল্লেখযোগ্য কিছু নাটক হলো, “ওরা এখন ডিরেক্টর প্রোডিউসার”, “বিয়ের বয়স”, “5G নেটওয়ার্ক” বনি চৌধুরীর “ছক্কা পাঞ্জা,” ড্যাম ফিউচার” এগুলো সবই ছিলো ধারাবাহিক নাটক। বর্তমানে এটিএন বাংলায় প্রচার চলছে আমার অভিনীত সিরিয়াল এস এম শাহিন এর “সোনাভান” ও সাঈদ তারেক পরিচালিত “লাইফ পার্টনার ডটকম।” এখন স্যুটিং করছি জয় সরকার পরিচালিত নতুন দুটি ধারাবাহিক “আজব রং এর মানুষ” ও “প্রমাণ আছে” তে। ইতিমধ্যে আমার অভিনীত ও প্রচাররিত একক নাটক গুলো হলো, ভাস্কর্য, মায়ের বালা, মেঘের বাড়ি যাবো, মেঘলা মেঘলা দিন, আমি হিয়ার এক্স। প্রচারের অপেক্ষায় আছে ফটকাবাজ ফজলু, বাপের বেটা ফরহাদ, বিয়ে পাস বদরুল, তখনও জানতে থাকি,। এছাড়াও গেল কোরবানি ঈদে বিভিন্ন চ্যানেলে সাতটি নাটক প্রচার হয়েছে।”

অভিনেত্রী ইরা শিকদার জানান, “আমার অভিনীত নাটকগুলোতে আমি নায়ক হিসেবে পেয়েছি মীর সাব্বির, আখম হাসান, সজল, আনিসুর রহমান মিলন, রওনক হাসান, শিপন মিএ, রাশেদ মামুন অপু, সাব্বির আহমেদ কে।”

টিভি মিডিয়ায় নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি বেশ কিছু মিউজিক্যাল ফিল্মে মডেল হয়েছেন পাঁচ ফুট চার ইঞ্চি উচ্চতার দীর্ঘাঙ্গী এই সুন্দরী তরুণী ইরা শিকদার। তিনি বলেন, “ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ, বেবী নাজনীন সহ রিংকু, সালমা, কাজী শুভ, বেলাল খান – এদের গানের মিউজিক্যাল ফিল্মে মডেল ছিলেন তিনি। এছাড়াও নাইট কুইন মশার কয়েল, স্বদেশ প্রপার্টিজ এর টিভিসিতেও মডেল হয়েছিলেন হালের এই চিত্রনায়িকা। এ ছাড়াও কৃষি মন্ত্রণালয় ও পুলিশের সিআইডি বিভাগের ডকুমেন্টরীতে অভিনয় করেছিলেন তিনি।

হাসিখুশি এই দীর্ঘকায় সুন্দরী তরুনী শৈশব থেকেই স্বপ্ন দেখে আসছেন দর্শকদের স্বপ্নের রানী হওয়ার। সেই ভাবনা থেকেই নিজেকে তৈরি করে শোবিজে এসেছেন। নিজের ক্যারিয়ার পরিকল্পনা সম্পর্কে ইরা শিকদার বলেন, “আমার মূল টার্গেট হলো চলচ্চিত্র। এটি আমার শৈশব স্বপ্নের মাধ্যম, শুধু স্বপ্ন বললে ভুল হবে চলচ্চিত্র নিয়ে আমার সকল সাধনা।”

ইরা বলেন, “নিজের মেধা প্রতিভা আর যোগ্যতার বলে আমি কাজ করে চলেছি। আমার বিশ্বাস এগুলোর কল্যানে ঠিকই আমি নিজেকে আমার কাঙ্ক্ষিত স্থানে পৌঁছাতে সক্ষম হবো।”