বঙ্গ’বন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববি’দ্যালয়ের ভি’সিকে লা’ল কা’র্ড প্র’দর্শন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৭:৫৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৫৫:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৯

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগের দাবিতে ৯ম দিনের মতো শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে।

 

শুক্রবার বিকেল ৫ টায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের জয় বাংলা চত্বরে ভিসিকে লাল কার্ড প্রদর্শন করেছেন। ক্যাম্পাসে হাজার হাজার শিক্ষার্থী জড়ো হয়ে এ কার্ড প্রদর্শন করেন। এ সময় তারা ভিসির পদত্যাগের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

 

এর আগে এ দিন বেলা সাড়ে ১১ টায় ভিসির পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের ওই চত্বরেই ভিসির কুশপুত্তলিকা দাহ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

 

শি’ক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় বিশ্ববি’দ্যালয় গঠি’ত ৩ স’দস্যের তদন্ত ক’মিটি বৃহস্পতিবার স’ন্ধ্যায় রেজিষ্ট্রার প্রফে’সর ড. নূরউদ্দিন অ’হমেদের কাছে ত’দন্ত প্রতি’বেদন দাখিল ক’রেছে।

 

ত’দন্ত কমিটির প্রধান প্রফেসর ড. আব্দুর রহি’ম খান ব’লেন, এ তদন্ত প্রতি’বেদনে শিক্ষার্থীদের ওপর হাম’লার ঘট’নায় আ’ইন প্রয়ো’গকারী সংস্থার সহ’যোগিতা নেয়া”র সুপারিশ ক’রা হয়ে’ছে।

 

রেজিষ্ট্রার প্র’ফেসর ড. নূরউ’দিন অ’হমে’দ প্রতিবেদন পাওয়া’র কথা স্বীকা’র করে বলে’ন, এ ব্যাপারে বি’শ্ববিদ্যা’লয় প্রশাসন বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবে।

 

শিক্ষার্থী মেহেদেী হা’সান জা’নান, ভিসির প’তন না হওয়া পর্যন্ত আ’মাদের আন্দোলন অ’ব্যাহত থাকবে। কো’ন কিছুই আমা’দের আন্দোলন দমাতে পারবে না।

শুক্রবা’র রাত ৮টায় ভিসির পদত্যা’গের দাবিতে ক্যাম্পা’সে মশাল মিছিল হ’বে বলে ওই শিক্ষার্থী জানি’য়েছেন।

 

গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের আই’ন বিভাগে’র ছাত্রী ফাতেমা-তুজ-জিনিয়া’কে অন্যায়ভা’বে বহিষ্কার করে বিশবিদ্যালয় প্রশাসন। পরে কঠোর ‘সমালোচনার মুখে ১৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ববি’দ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বহিষ্কার আদেশ প্র’ত্যাহার করে নেয়। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শিক্ষার্থীরা ভিসি পতন আন্দো’লন শুরু করেন। ২১ সে’প্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা’ করে সকাল ১০ টার মধ্যে হ’ল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়। এ দিন ভিসি সমর্থিত বহিরাগতের হাম’লায় ২০ শিক্ষার্থী আহ’ত হয়। তার’পর থেকে ভিসি পতন আন্দো’লনের অনড় অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।