‘বেশি কথা বললে হাতকড়া পরিয়ে থা’নায় নিয়ে যাবো’

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৫৫:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

চট্টগ্রামে এক শিক্ষানবিশ আইনজীবীকে হাতকড়া পরিয়ে থা’নায় নেয়ার হু*মকি দিয়েছেন সিএমপি’র এক ট্রাফিক সার্জেন্ট ও এক কনস্টেবল।
অ’ভিযুক্তরা হলেন- সিএমপি’র ট্রাফিক উত্তর বিভাগের সার্জেন্ট এসএম মাহমুদুর রহমান ও কনস্টেবল মাজেদুল।

শনিবার নগরীর মুরাদপুর ট্রাফিক বক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী রাজিবুল ইস’লাম আরিফ একজন শিক্ষানবিশ আইনজীবী। তিনি বলেন, বড় ভাই মাইনুল ইস’লামের ছে’লে হাসপাতা*লে ভর্তি। জরুরি প্রয়োজনে ভাইয়ের সঙ্গে হাসপাতা*লে যাচ্ছিলাম। ফেরার সময় মুরাদপুর মোড়ে মোটরসাইকেল থামানোর নির্দেশ দেন কনস্টেবল মাজেদুল।

রাজিব বলেন, আম’রা মোটরসাইকেল থামালে কাগজপত্র দেখতে চান তিনি। আম’রা জানাই, সময় কম থাকায় কাগজপত্র আনতে ভুলে গেছি। ১০ মিনিট সময় দেন নিয়ে আসছি।

রাজিব আরো বলেন, মোটরসাইকেল পার্ক করার সঙ্গে সঙ্গে চাবি খুলে নেন ওই কনস্টেবল। নির্দেশ মেনে পার্ক করার পরও চাবি নেয়ার কারণ জানতে চাইলে কনস্টেবল বলেন, ‘বেশি কথা বললে চু’রির মা’মলা দিয়ে হাতকড়া পরিয়ে থা’নায় নিয়ে যাবো।’

বিষয়টি সার্জেন্ট মাহমুদকে জানালে তিনিও একই হু*মকি দেন। পরে আমাদের মোটরসাইকেল টো করে মা’মলা দেন।

কাগজপত্র না থাকায় মোটরসাইকেল আরোহীকে গ্রে*ফতার করা এবং একজন কাউকে চু’রির মা’মলায় গ্রে*ফতার করতে পারেন কি না জানতে চাইলে অ’ভিযুক্ত সার্জেন্ট মাহমুদ এই প্রতিবেদককেও গ্রে*ফতারের হু*মকি দিয়ে বলেন, ‘আপনি আসেন। দেখেন গ্রে*ফতার করতে পারি কিনা।’

এ বিষয়ে নগর ট্রাফিক উত্তর বিভাগের ডিসি আমীর জাফর বলেন, গাড়িতে কাগজপত্র না থাকলে নিয়মিত মা’মলা হতে পারে। কিন্তু একজন সার্জেন্ট কখনোই কাউকে চু’রির মা’মলা দিয়ে গ্রে*ফতার করতে পারেন না।

ডিসি জাফর আরো বলেন, ওই সার্জেন্ট যদি এমন কথা বলে থাকেন তবে অন্যায় করেছেন। অ’ভিযোগ পেলে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে।