লেখালয় সাহিত্য সম্মাননা ২০১৯ পেলেন তরুণ লেখক আজহার মাহমুদ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:১৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯ | আপডেট: ১০:১৩:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯
সম্মাননা গ্রহন করছেন লেখক আজহার মাহমুদ

তানজিদ শুভ্রঃ

গত ১৩ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) অনুষ্ঠিত হয় মাসিক লেখালয়ের বর্ষপূর্তি উদযাপন ও লেখালয় সাহিত্য সম্মাননা ২০১৯। বিকেল ৫ ঘটিকায় চকবাজারস্থ দিদার মার্কেটের পাশে নাহার প্লাজা ভবনের ৩য় তলায় যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থার হল রুমে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

প্রথমবারের মতো সম্মাননা দিতে এসে মাসিক লেখালয় চমক সৃষ্টি করেছেন। দিয়েছেন তরুণদের সম্মাননা। লেখালয় সাহিত্য সম্মাননা ২০১৯, পেলেন তরুণ লেখক, আজহার মাহমুদ, নুরুল আজিম ইমতিয়াজ, ও আবদুল হামিদ। এবং লেখালয় বর্ষসেরা আলোকচিত্রীর পুরুষ্কার পেলেন, তিন তরুণ আলোকচিত্রী।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশ পত্রিকার সহকারি সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সিনিয়ার মেডিকেল অফিসার ডাঃ সাজিয়া আফরিন। যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক সাঈদুল আরেফীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিশু সাহিত্যিক ও আলোর পাতার সম্পাদক এমরান চৌধুরী। সঞ্চালনা করেন, ইমরান হোসাইন। এছাড়া সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন মাসিক লেখালয়ের সম্পাদক শওকত আলী।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, তরুণদের এ সম্মাননা সত্যি অনেক আনন্দের। আমি তরুণ লেখক আজহার মাহমুদকে জানি। সে খুব ভালো লিখে। তার লেখা বাংলাদেশের বেশ কয়েকটিতে প্রকাশ হয়। আমি সেগুলো পড়ি। এই যে তার মেধা এবং উৎসাহ এটা যেন হারিয়ে না যায় আমাদের সেটা খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের এসব তরুণদের পাশে থেকে তাদের আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। লেখলায় সাহিত্য সম্মাননা যারা পাচ্ছে তারা সবাই খুব ভালো লেখক। লেখালয় পরিবারকে ধন্যবাদ তারা যোগ্য লেখকেই সম্মানিত করছে।

তরুণদের উদ্দেশ্য করে অন্য বক্তারা বলেন, তরুণরা যদি লেখালেখি করে তবে সমাজ ও রাষ্ট্র আরও উপকৃত হবে। বক্তারা আরও বলেন তারা যেন বেশি বেশি বই পড়ে এবং তাদের জানার পরিধিকে আরও সম্বৃদ্ধি করে।

সম্মাননা পেয়ে আজহার মাহমুদকে তার অনুভূতি জানাতে বললে তিনি বলেন, লেখালেখির অনুপ্রেরণা আমি বাবার কাছ থেকেই পেয়েছি। আমি যখন ৪র্থ শ্রেণীতে পড়তাম তখন থেকে আমার বাবা আমাদের বিভিন্ন বিষয়ের উপর প্রবন্ধ লিখতে দিতো। সেখান থেকেই আমার যাত্রা শুরু।

আমার এই অল্প বয়সে যে সম্মাননা আমি পেয়েছি সেটা আমাকে আরও অনেক দূরে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে। এজন্য আমি লেখালয় পরিবারের কাছে কৃতজ্ঞ।