‘ডিজিটাল বরিশাল’ মোবাইল এ্যাপস পেল সরকারি অনুমোদন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:৫১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭ | আপডেট: ১১:৫১:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭
‘ডিজিটাল বরিশাল’ মোবাইল এ্যাপস পেল সরকারি অনুমোদন

নাগরিক সেবা প্রদানে মোবাইল এ্যাপস কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সেবা প্রদানে ২০১৫ সালে ‘ডিজিটাল বরিশাল’ নামের একটি মোবাইল এ্যাপস যাত্রা শুরু করেন। ‘ডিজিটিাল বরিশাল’ এ্যাপসটি বরিশাল বিভাগে যাত্রা শুরু করলেও তাদের গ্রাহক ছড়িয়ে পড়েছে বরিশাল বিভাগে। ইতিমেধ্যে বরিশালে সকল জেলায় এ্যাপসটি সারা পেয়েছে। বরিশাল বিভাগের এই এ্যাপসটি তাদের বরিশালে সর্ব প্রথম মোবাইল এ্যাপস কপিরাইট সার্টিফিকেট সরকারি নিয়ম অনুযায়ী তাদের যাত্রার আগেই সরকারি অনুমোদন পাওয়ার জন্য সকল প্রক্রিয়া চালিয়ে গেছেন কোম্পানীর পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার জিহাদ রানা। এ্যাপসটির সকল কার্যক্রম দেখে গতকাল ১৩-১২-২০১৭ (বুধবার) তাদের সরকারি অনুমোধন দিল সাংস্কিৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর রেজিস্টার অব কপিরাইট জনাব জাফর রাজা চৌধুরী কোম্পানীর পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার জিহাদ রানা’র হাতে স্বত্বাধিকার নিবন্ধভূক্তির প্রমানপত্র প্রদান করেন। সাংস্কিৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের রেজিস্টার অব কপিরাইট জাফর রাজা চৌধুরী বলেন, ‘ডিজিটাল বরিশাল’ এ্যাপসটির ইতি মধ্যে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়লে বাংলাদেশ সরকার সরকারি অনুমোদন প্রদানের আদেশ দেন। তিনি আরো বলেন ডিজিটাল বরিশাল এ্যাপসটিতে আমরা কোন ত্রুটি বা কোন ভুল তথ্য পাইনি। বরিশাল প্রত্যেকটি জেলায় নামটি এক নামেই পরিচিত পেয়েছে। জানাগেছে ইঞ্জিনিয়র বিডি নেটওয়ার্ক নামের একটি আইটি ফার্ম থেকে তাদের যাত্রা শুরু হয়। এমন অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার দ্বারা এ্যাপসটি পরিচালনা করে তারা আজ সফলতা অর্জন করেন। আমি সবাইকে বলি বিভাগীয় তথ্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য দেয় এ্যাপসটি। আমি ডিজিটাল বরিশাল এ্যাপসটির সফলা কামনা করছি।Image may contain: phone এবিষয়ে এ্যাপসটির পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার জিহাদ রানা জানান, আমি দেশের সেবা করার জন্য ২০১৫ সালে এ এ্যাপসটি উদ্ভোধন করি। আমার এই এ্যাপসটি এত সারা পাবে তা আমি সত্যি ভাবিনি। আমার এ্যাপসটি সরকারি অনুমোদন দেওয়ায় আমি মাননীয় প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আইটি বিষয়ক মন্ত্রী জুনায়েদ আহাম্মেদ পলককে  আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। উল্লেখ্য, “ডিজিটাল বরিশাল” আইটি এই এপস টি জেলা উদ্ভাবনী মেলায় পর পর দুই বার ২০১৬-২০১৭ সালে পুরুস্কার পান।