যুবদের কার্যকর অংশগ্রহণের জন্য জাতীয় কাউন্সিল গঠনের দাবি

প্রকাশিত: ৯:৩০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৯ | আপডেট: ১১:২৫:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৯

নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে জাতীয় যুব কাউন্সিল গঠনের দাবি তুলেছে দেশের যুবসংগঠনগুলো। রাজধানীতে এক আলোচনা সভার আলোচনায় তারা এ দাবির পাশাপাশি জাতীয় যুব কাউন্সিল গঠনের লক্ষ্যে বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন। আলোচনায় যুবদের কন্ঠে উঠে আসে নানা রকম সমস্যা ও বঞ্চনার কথা। সব ধরনের বৈষম্যের দেয়াল ভেঙে তরুণরাই সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেন উপস্থিত নীতিনির্ধারকরা।

আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) সিরডাপ মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত। ধ্রুবতারা ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অমিয় প্রাপন চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সচিব আবতাব আহমেদ, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক এ. এন. আহমদ আলি, অক্সফাম ইন বাংলাদেশের প্রোগ্রাম ম্যানেজার খালিদ হোসেন,  একশনএইডের ম্যানেজার নাজমুল আহসান প্রমুখ। আলোচনায় দেশের বিভিন্ন এলাকার যুব সংগঠকরা তাদের মতামত তুলে ধরেন।

বক্তারা বলেন,বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ যুব সমাজ। জাতীয় যুব নীতি ২০১৭ অনুযায়ী ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়স সীমার সকল নাগরিক কে যুব বলা হয়। জাতীয় যুব নীতিমালার যুব সংগঠন ( নিবন্ধন এবং পরিচালনা) আইন ২০১৫ এর ধারা ১৩ তে জাতীয় যুব কাউন্সিল গঠনের বিষয়টিও উল্লিখিত রয়েছে।  সরকারের ঘোষিত নির্বাচনী ইশতেহারের ‘তারুণ্যের শক্তি -বাংলাদেশের সমৃদ্ধি’ এই প্রতিপাদ্যটির তাৎপর্য বিবেচনায় দক্ষ ও সচেতন যুব-শক্তি গড়ে তোলার লক্ষ্যে উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় তাদের সম্পৃক্ত-করণ একান্ত আবশ্যক। উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় যুবদের সম্পৃক্তকরণের ক্ষেত্রে জাতীয় পর্যায়ে প্রয়োজন এমন একটি প্ল্যাটফর্ম অর্থাৎ জাতীয় যুব কাউন্সিল।


এই কাউন্সিলের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের তৃণমূল পর্যায়ের যুবরা তাদের চাহিদা, পরিকল্পনা ও প্রত্যাশা সরকারের নীতি- নির্ধারকদের কাছে তুলে ধরতে পারবে।

অনুষ্ঠানটির অর্গানাইজার হিসেবে ছিলো ধ্রুবতারা এবং সহযোগিতায় ছিলো অক্সফাম।