কারাবন্দী খালেদা জিয়া দাঁতের চিকিৎসা নিলেন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০১৯ | আপডেট: ৯:৫৪:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০১৯

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে মুখের ঘায়ের জন্য দন্ত বিভাগে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। শনিবার বেলা দেড়টার পর কড়া পাহারায় খালেদা জিয়াকে কেবিন ব্লক থেকে বের করা হয়। এরপর তাকে একটি মাইক্রোবাসে করে নেয়া হয় শ’ খানেক গজ দূরের আরেকটি ব্লকে দন্ত বিভাগে। বেলা সোয়া ২টার দিকে তাকে ফিরিয়ে নেয়া হয় কেবিন ব্লকে।

এ বিষয়ে অ’সুস্থ খালেদা জিয়া চিকিৎসক বিএসএমএমইউর ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিফেসিয়াল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. কাজী বিল্লুর রহমান বলেন, দাঁতের ক্ষয়জনিত কারণে খালেদা জিয়ার সমস্যা হচ্ছিল। ওই দাঁত ঠিক করে দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জিভে ক্ষত হয়েছিল বলে বিএ’নপি নেতারা ‘রিকুইজিশন’ দিয়েছিলেন। তার ভাঙা দাঁত ছিল, সেখান থেকেই মূলত ঘষা লেগে লেগে এই ক্ষত তৈরি হয়। সেই ভাঙা দাঁত আমরা আজ ঠিক করে দিয়েছি, সমান করে দেয়া হয়েছে।’

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দেড় বছরের বেশি সময় ধরে কারাগারে রয়েছেন। পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অ’সুস্থ হওয়ায় চিকিৎসার জন্য গত ১ এপ্রিল তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে আনা হয়। এরপর থেকে তিনি এখানে রয়েছেন।

বিএ’নপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে দলীয় চেয়ারপারসনের স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি তখন অন্য সমস্যার সঙ্গে খালেদা জিয়ার দাঁতের চিকিৎসার প্রয়োজনের কথাও বলেছিলেন। তার দুটি দাঁতের অবস্থাও ভয়াবহ। বিষয়টি হাসপাতালের চিকিৎসকদের জানিয়েছি কয়েকবার। তারা ব্যবস্থা নেবেন বলে এখন পর্যন্ত কোনো চিকিৎসার ব্যবস্থা করেননি।

তিনি জানান, ইদানীং ম্যাডামের আরেকটি সমস্যা দেখা দিয়েছে। তার ব্লাড সুগার ইনসুলিন নেয়ার পরও নামছে না। তিনি ডায়াবেটিসের তিনটা ওষুধ খাচ্ছেন, তারপরও কিছুতেই তা ২০-এর নিচে নামছে না। যার ফলে জিহ্বার আলসার আরও বাড়ছে। আপনারা জানেন যে এ ধরনের রোগ দ্রুত বাড়তে থাকে। আর্থ্রাইটিস, ফ্রোজেন শোল্ডার রোগে তার স্বাস্থ্যের আরও অবনতি ঘটেছে। তিনি পা সোজা করতে পারেন না। তার কাঁধে সমস্যা। মোটকথা তিনি ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে রয়েছেন।’

তিনি বলেন, ম্যাডামের ব্যাপারটা দলের সবাইকে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। পরিবার ও দেশের মানুষও উদ্বিগ্ন। আমরা বুঝতে পারছি না, কেন তার চিকিৎসা নিয়ে এমন করা হচ্ছে? তারা কি ম্যাডামকে মেরে ফেলতে চায়? এই প্রশ্নগুলো তো মানুষের মধ্যে এসে যাচ্ছে। চিকিৎসা তো তার প্রাপ্য। কিন্তু তাকে চিকিৎসাটাই দেয়া হচ্ছে না। আমরা আরও উন্নত স্পেশালাইজড হাসপাতালে তার চিকিৎসার দাবি জানাচ্ছি।

মানবকণ্ঠ