মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মো: সিরাজ উল্লাহে গ্রেফতার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৭:২৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৯ | আপডেট: ৭:২৫:অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৯

চট্টগ্রাম ব্যুরোঃ

আগামী ২০ জুলাই বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় মহা সমাবেশ বানচাল করার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মো: সিরাজ উল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়েছে উল্লেখ করে মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাঈনুদ্দিন মো: শহীদ, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, সহ-সভাপতি একে এম ফজলুল হক সুমন, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান জিয়া, যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান, জমির উদ্দিন নাহিদ এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, ভোট ডাকাত আওয়ামী লীগ সরকার তাদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার নোংরা অপচেষ্টার অংশ হিসেবেই ছাত্রনেতাদের গ্রেফতার করছে।

ছাত্রনেতারা দেশ ও জাতির প্রয়োজনে নিঃস্বার্থ ও নিরলসভাবে কাজ করে বলেই তারা যে কোন স্বৈরাচারের সর্বপ্রথম শিকার হয়। তারই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে চট্টগ্রামের ছাত্র সমাজের একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র গাজী মো: সিরাজ উল্লাহকে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভীত্তিহীন মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্বৈরাচারেরা হয়ত ভুলে গেছে ছাত্রদের কখনো দাবিয়ে রাখা যায় না। গাজী সিরাজ একজন জনপ্রিয় ও পরিচ্ছন্ন ছাত্রনেতা।

তার মেধা ও সাংঠনিক দক্ষতায় ভীত সন্ত্রস্ত আওয়ামীলীগ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং এ মিথ্যা মামলায় পরিকল্পিত ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন- মাদার অব ডেমোক্রেসি আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ২০ জুলাই চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক মহা সমাবেশ পন্ড করার গভীর ষড়যন্ত্রের অংশই হচ্ছেই গাজী সিরাজকে গ্রেফতার করা। চট্টগ্রামের ছাত্র সমাজকে একত্রিত করে বৃহৎ আন্দোলন গড়ে তোলার মত সক্ষমতা সম্পন্ন ছাত্রনেতা গাজী সিরাজ উল্লাহ আওয়ামী লীগের রাষ্ট্রীয় নির্যাতনের শিকার। আমরা অনতিবিলম্বে আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মো: সিরাজ উল্লাহর নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাই এবং তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের আহ্বান জানাই।

গাজী সিরাজের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মো: সিরাজ উল্লাহকে বিভিন্ন থানার ৪৪টি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। এসময় আদালত তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য তার বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন থানায় প্রায় শতাধিক রাজনৈতিক মামলা রয়েছে। গাজী সিরাজকে আদালতে তোলা হলে আদালত প্রাঙ্গণে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ভীড় জমে এবং নেতাকর্মীরা গাজী সিরাজের মুক্তির দাবিতে আদালত প্রাঙ্গণে স্লোগান দিতে থাকেন।