মিমের মাকে নিয়ে বিরক্ত সহকর্মীরা!

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৭:৪২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৭ | আপডেট: ৭:৪২:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৭
মিমের মাকে নিয়ে বিরক্ত সহকর্মীরা!

বিদ্যা সিনহা সাহা মিমের মা ছবি সাহার লবিং খুব স্ট্রং, শোবিজে এমন কথা প্রচলিত রয়েছে। মিমের কাজগুলো কোন না কোনভাবে মা পাইয়ে দেয়। এভাবেই মিমের ক্যারিয়ারের উর্ধগতি চলছে। মিম যেখানে পিছিয়ে যায়, মিমের মা সেখান থেকে তাকে টেনে তুলে। সাংবাদিক থেকে শুরু করে প্রযোজক-পরিচালক সর্বক্ষেত্রে রয়েছে মিমের মায়ের হস্তক্ষেপ। শোবিজে মিমের মায়ের এমন চলনে কেউ বুদ্ধিমতী বলে, কেউবা বলে কীভাবে যেন মেকানিজম করে সবাইকে পটিয়ে ঠিকই এচিভমেন্টের জায়গায় নিয়ে যেতে পারে মিমের মা। মিডিয়ায় সহশিল্পী, প্রযোজক, পরিচালক অনেকেরই অভিযোগ আছে কাজের মধ্যে মিমের মায়ের অতিরিক্ত উপস্থিতি ও খবরদারির জন্য তারা বিরক্ত হয়।শুটিংয়ের ক্ষেত্রে নিয়মিত মিমের সঙ্গী হয় তাঁর মা।

এক্ষেত্রে দেশে বিদেশে বাড়তি খরচ বহন করতে হয় প্রডিউসারকে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নির্মাতা বলেন, ‘মিমের মায়ের লবিং সরকারী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা থেকে শুরু করে দেশের ক্ষমতাশালী অনেক ব্যাক্তি। সেক্ষেত্রে তার সঙ্গে কাজ করতে গেলে অনেক ভেবে কাজ করতে হয়। অনেকেই তাকে এজন্য এড়িয়ে চলে। আর সিনেমার ক্ষেত্রে অনেক ব্যাপার থাকে। মিমের মা সর্বক্ষনিক তার পেছনে থাকে। এমনকি গল্পও শোনাতে হয় তাকে। এটা নিয়ে বিরক্ত। শুধু আমি নই, অনেকেই বিরক্ত।’ এ নিয়ে মিমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি অনেক ভাগ্যবতী যে আমি এমন একজন মা পেয়েছি, যে আমাকে সবসময় সাপোর্ট করে। প্রত্যেকটা মানুষই জীবনে ভুল করে। আমি এমন এক মাধ্যমে কাজ করি যেখানে ভুল হওয়া বা পা পিছলে পরে যাওয়া খুব সহজ। সেখানে আমি মনে করি এখন পর্যন্ত কখনো কোন ভুল হয়নি মায়ের জন্য। তাছাড়া শুটিংয়ে তিনি সঙ্গে থাকলে সেটা আমার সুবিধার জন্যই থাকেন। তিনি থাকলে বরং আমি টাইমলি পৌছাতে পারি। আমার দক্ষতা না থাকলে আমি কখনো এখানে আসতে পারতাম না। যারা এগুলো রটায় আমি বলবো তাদের ধারনা ভুল।’