চোখের তারায় আয়না ধরার নেই কোনো দিনক্ষণ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৭ | আপডেট: ৮:৫৪:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৭
চোখের তারায় আয়না ধরার নেই কোনো দিনক্ষণ

চোখের আবেদন সবসময়ই ভিন্ন। চোখের তারায় আয়না ধরার নেই কোনো দিনক্ষণ। কেবল কাজ অনুযায়ী পাল্টে যায় চোখের আদল। অফিস, পার্টি বা বন্ধুদের আড্ডা যাই হোক, এ জন্য চাই মানানসই চোখের সাজ…

 

সারা দিন ঘরে যেমন তেমন, বাইরে বেরোনোর আগে হাল্কা সাজ তো লাগেই। কলেজ-ভার্সিটি, পার্টি কিংবা বিয়েবাড়ি, এমনকি বন্ধুদের আড্ডাতেও পরিপাটি হাজিরা টানতে কে না চান। এদিকে সময় বুঝে সাজের পরামর্শ দিয়ে থাকেন রূপবিশেষজ্ঞরা। তাই ভারি সাজ কিংবা হাল্কা সাজ, বুদ্ধি খাটিয়ে সাজতে পারলেই সারা দিনের ঝক্কি-ঝামেলা সামলে ঝটপট করে নিতে পারেন পরিপাটি সাজ। এতে পুরো সাজ-মেকআপে নজর দেওয়ার প্রয়োজন নেই, চোখের সাজে পূর্ণতা দিতে পারলেই বাজিমাত।

 

ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক ও রূপবিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম বলেন, ‘চোখের সাজ নিয়ে মজা হতে পারে। কেননা, চোখই যে মনের আয়না। সেই আয়নাতেই ফুটে ওঠে মনের হাজারও কথা।

আর সেই চোখের জাদুতে ঘোল খাননি বা দেননি এমন পুরুষ পাওয়া দুষ্কর। খুব বেশি কিছু নয়, এজন্য আইশ্যাডোর ঝামেলায় না গিয়ে কোবাল্ট ব্লু, সানশাইন ইয়েলো থেকে শুরু করে রুপালি কিংবা সোনালি আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন। ভ্রু দুটির আকৃতি যাতে ঠিক থাকে সেদিকটাও খেয়াল রাখুন। চোখের পাতায় দুই বা তিন পরত মাশকারা পূর্ণ করতে পারে আপনার চোখের সাজ। ’ আবার আইলাইনার চোখের ওপরে আর নিচে মোটা করে লাগালে চোখ বড় বেশি কঠিন হয়ে যায়। আইলাইনারের চেয়ে মেঘকালো ঘন কাজলের ওপর জোর দিচ্ছেন তিনি। কাজলের সাজে স্কিন টোনের হাল্কা আইশ্যাডোর পোচ আর চোখের ওপর ঘন কাজল তৈরি করে দেবে আপনার ব্যস্ত দিনের সাজ। তার ওপরে থাকুক সামান্য মাশকারার আশকারা। ব্যস, পরিপাটি চোখের সাজ। 

চোখের সাজে প্রথমেই নজর দিন চোখের ওপর। চোখে কাজল এঁকে আইশ্যাডো লাগান। এ জন্য কাছাকাছি দুটি শেড বেছে নিন। ভালো মানাবে। বিকাল বা রাতের সাজে একটু গাঢ় রঙের আইশ্যাডো লাগাতে পারেন। চোখের পাতার ওপরের অংশে লাইট ও চোখের পাতার মাঝে ডিপ আইশ্যাডো ট্রাই করুন। আইলাইনার ও মাশকারার ক্ষেত্রে ওয়াটারপ্রুফ বেছে নিন। চোখ হাইলাইট করতে আই পেনসিল ও মাশকারা ব্যবহার করুন। সঙ্গে জুড়ে দিতে পারেন বেজ হালকা রঙের শেড। চোখের সাজে গর্জিয়াস ন্যুড লুক আনতে ওয়াটারপ্রুফ মাশকারা লাগান।

 

সকালে অফিস কিংবা ভার্সিটির জন্য সময় নিয়ে গুছিয়ে ওঠা দায়। তাই সকালে গায়ের রংকেই চোখের সাজে ছড়িয়ে দিন। ফর্সা হলে গোলাপি আইশ্যাডো দিতে পারেন নীল রঙের বেজ-ও। গায়ের রং চাপা হলে, বেছে নিন কালো, ডার্ক ব্রাউন বা অ্যাশ রং। তবে সাতসকালে চোখে শিমার বড্ড বেমানান। এর পরিবর্তে ক্রিম বেজ স্কিন টোনের আইশ্যাডো চোখের ওপর দিয়ে দিতে পারেন। ন্যুড আই মেকআপ সহজেই আপনার চোখের স্বাভাবিক সৌন্দর্য তুলে ধরবে। আর আপনাকে দেখাবে আরও প্রাণবন্ত।

 

আসলে সুন্দর চোখ নয়, অন্যকে দেখার চোখের ভঙ্গি মন টানে বলে মনে করেন রূপ বিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম। তিনি আরও বলেন, বেশ কিছুকাল আগে কাজল ছাড়া চোখের প্রসাধনের চলও ছিল না। চোখের চারপাশের প্রসাধনী রঙের চেয়ে চোখের ভিতরের রংই তুলে ধরি। ’

 

স্মোকি আইজ : যে কোনো বয়সে স্মোকি সাজ বেশ মানিয়ে যায়। এ জন্য প্রথমেই নিজের শরীরের রঙের সঙ্গে মিলে যায় এমন রং দিয়ে প্রথমেই চোখের ওপর অংশটা ভরাট করে নিন। এরপর চোখের নিচে, ভিতর দিক সরু করে ব্রাউন বা কালো কাজলের রেখা এঁকে দিন। কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করলে অনেকেই কাজল এড়িয়ে চলেন। তারা চোখের উপরিভাগে কালো বা ব্রাউন আইলাইনার লাগিয়ে চোখের ওপরের অংশ ও ভ্রুর ঠিক নিচের অংশে হালকা করে স্কিনটোনের শ্যাডো লাগিয়ে নিন।

 

বাদল দিনের প্রেম : বাদলা দিনে ঘন কালো আইশ্যাডো দিয়ে চোখ ভরাট করুন। অ্যাশ রং ট্রাই করুন। এরপর চোখের ওপরে ও নিচে ঘন করে কাজল লাগান। মাশকারা লাগানোর পর ব্রাশ দিয়ে চোখের নিচের কাজলটা স্মাজ করে নিন। চোখে নেশা ধরাতে চোখের কোনার দিক করে নীল বা সবুজ ম্যাট আইশ্যাডো লাগিয়ে নিন। ব্যস, অল্পতেই হয়ে উঠবেন অনন্য।

– বাংলাদেশ প্রতিদিন