জগন্নাথপুরের বেদে সম্প্রদায় নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৭:১৩ অপরাহ্ণ, জুন ১১, ২০১৯ | আপডেট: ৭:১৩:অপরাহ্ণ, জুন ১১, ২০১৯

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় অস্থায়ীভাবে বসবাসকারী যাযাবর বেদে সম্প্রদায়ের লোকেরা নাগরিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এ কারণে পরিবার-পরিজন নিয়ে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। ছেলে মেয়ে লেখা পড়া থেকে বঞ্চিত।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার পৌর শহরের ৬নং ওয়ার্ড দীর্ঘ দিন ধরে অস্থায়ীভাবে বসবাস করে আসছে। সকল প্রকার রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হওয়া তারা চরম ব্যথিত রয়েছেন। বর্তমান সময়ে বেদের জীবনযাপনে নানারকম সমস্যা হরহামেশাই দেখা যায়। কিন্তু দেশের প্রাচীন এই সম্প্রদায়টি চির অবহেলিতই রয়ে গেছে। বিশেষ পৌরসভার নির্বাচনের সময় ভোট চাইতে আসেন প্রার্থীরা কিন্তু বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্টানে তাদের স্বরণ করা হয়না। গত ঈদুল ফিতরের সময় পায়নি কোন ধরনের সাহায্য সহযোগিতা। তাঁবুতে বাসস্থান গড়ে বেদেরা বছরের পর বছর মাসের পর মাস বসবাস করে থাকেন। কোথাও পুরুষেরা ঘর পাহারা দেয় আবার কোথাও নারী-পুরুষ উভয় মিলে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।

সম্প্রদায়ের লোকদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, তাদের কেউ থালাবাসন বিক্রি করে। কেউ সাপখেলা দেখায় ও তাবিজ কবজ বিক্রি করে। আবার মহিলারা লম্বা ঝোলা কাঁধে নিয়ে ঘুরে বেড়ায় গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে। সিঙ্গা লাগিয়ে বাতসহ নানারকম রোগের চিকিৎসা করে থাকে। প্রচন্ড ঝড়-বৃষ্টি ও তীব্রশীত উপক্ষো করে পরিবেশ প্রকৃতির সাথে সংগ্রাম করে যেতে হয় তাদের নিয়মিতভাবে। তবুও জীবিকার প্রয়োজন যাযাবর জীবন যাপনের স্বাচ্ছন্দ্য বুকে ধারণ করে বেদেরা বসবাস করেই যাচ্ছেন।

বেদে সম্প্রদায়ের লোকদের পূর্নবাসন নিয়ে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর উপজেলার সমাজ সেবা অফিসার আবুল কালাম আজাদ বলেন, উপজেলার বেদে সম্প্রদায়ের পূর্ণবাসনের জন্য কোন আবেদন আসে নাই। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যাদের মাধ্যমে যদি আবেদন আসে আমরা মন্ত্রানলয়ে পাঠিয়ে দিব। তাদের জন্য যতটুকু কাজ করার আমরা কাজ করবো।##