ভাতিজিকে ধর্ষণ : মামলা করায় চাচার হুমকি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:৩৭ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৭, ২০১৭ | আপডেট: ৯:৩৭:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৭, ২০১৭
ভাতিজিকে ধর্ষণ : মামলা করায় চাচার হুমকি

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় ভয় দেখিয়ে রুমে আটকে রেখে ১৪ বছরের ভাতিজিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে চাচা জাহাঙ্গীর সিকদারের (২৬) বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। কিন্তু মামলা করায় বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে জাহাঙ্গীর সিকদার। এতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে মেয়েটির পরিবার।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার দুপুরে ডিঙ্গামানিক গ্রামের জাহাঙ্গীর সিকদারের ঘরের ফ্রিজে রাখা মাছ আনতে যায় মেয়েটি। এসময় মেয়েটিকে ভয় দেখিয়ে পাশের বাড়ি মমতাজ বেগমের ঘরে নিয়ে আটকে রেখে কয়েকবার ধর্ষণ করে লম্পট জাহাঙ্গীর।

এদিকে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন মেয়েটিকে খুঁজতে থাকে। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মমতাজ বেগমের বাড়ির রুমে পাওয়া যায় মেয়েটিকে। সে মায়ের কাছে ধর্ষণের কথা বললে রাতেই তার বাবা নড়িয়া থানার ওসিকে বিষয়টি জানান।

পরে রোববার মেয়ের বাবা বাদী হয়ে জাহাঙ্গীর সিকদারকে আসামি করে নড়িয়া থানায় মামলা করেন। কিন্তু মামলা করার পর থেকে জাহাঙ্গীরের পরিবার বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে মেয়ের পরিবারকে।

মেয়ের বাবা বলেন, ‘আমি গরিব মানুষ। অটোরিকসা চালিয়ে বেঁচে আছি। জাহাঙ্গীর আমার মামাতো ভাই। মামলা করার পর থেকে আমাকে বিভিন্নভাবে ভয় দেখাচ্ছে জাহাঙ্গীরের ভাই মোর্শেদ সিকদার। আমার মেয়ের এখন কী হবে?’

কিন্তু জাহাঙ্গীর সিকদারের বড় ভাই মোর্শেদ সিকদার বলেন, ‘মেয়ের বাবার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমাদের বিরোধ আছে। তাই আমাদের হেয় করার জন্য মিথ্যা কথা রটাচ্ছে। আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।’

এদিকে ডিঙ্গামানিক ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য মুরাদ হোসেন সিদ্দিক বলেন, ‘দুই পক্ষই আমার কাছে এসেছিল। যদি ঘটনা সত্য হয় তাহলে দু’জনের বিয়ে হওয়া উচিৎ।’

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম উদ্দিন জানান, অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর সিকদারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক রয়েছেন। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে।