রোজায় ত্বকের যত্নে কিছু প্যাক ও টিপস

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:৫৩ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০১৯ | আপডেট: ৫:৫৩:অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০১৯

রমজানে সারাদিন রোজা রেখে ত্বক কিছুটা প্রাণহীন ও নিস্তেজ হয়ে পড়ে। পানির অভাবে ত্বকের আর্দ্রতা কমে যায়। তাই সিয়াম সাধনার পাশাপাশি এ সময় ত্বকের বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। রোজার দিনে সব কাজের পাশাপাশি নিজের জন্যও একটু সময় রাখতে হবে। রোজা রাখার কারণে শরীরে পানির পরিমাণ কম থাকে আর তার প্রভাব পড়ে আমাদের ত্বকে। রোজা রাখার ফলে অনেকেই ত্বকের যত্ন নিতে ভুলে যান। প্রতিদিন না হলেও সপ্তাহে একদিন সময় করে ঘরে বসে নিতে পারেন ত্বকের উপকারী কিছু প্যাক। স্বদেশ খবর পাঠকদের জন্য তাই রইলো রমজানে ত্বকের যত্ন বিশেষ কিছু টিপস।

দিনে দু’বার অন্তত ক্লিনজিং করতে পারেন। অতিরিক্ত টোনার এবং স্কার্ব ব্যবহার

এড়িয়ে চলতে হবে। তবে ময়েশ্চার করা যেতে পারে।

রমজান চলাকালীন সময়ে পানিশূণ্যতা দেখা দেয়। তাই প্রচুর পানি খেতে হবে। ইফতার থেকে সেহরি পর্যন্ত অন্তত তিন লিটার পানি অবশ্যই পান করা প্রয়োজন।

সানস্ক্রিন ব্যবহারের কথা ভোলা যাবে না। গলা, মুখ, হাতসহ যেসব স্থান খোলা থাকে সেখানে সানস্ক্রিন মাখিয়ে নিতে হবে।

শরীর থেকে বেরিয়ে যাওয়া পানি যেহেতু পূরণ হচ্ছে না তাই দেহে পানিশূণ্যতা দেখা দিতে পারে। চুলের স্বাস্থ্যেও পানিশূণ্যতার প্রভাব পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে হালকা শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। আর সেইসাথে থাকবে নিয়মিত কন্ডিশনারের ব্যবহার। চুল ফিরে পাবে উজ্জ্বলতা।

ভাজাপোড়া, গুরুপাক খাবার এড়িয়ে চলুন। বেশি সুগার সম্পন্ন খাবার খাবেন না। ক্যাফেইন যেমন: চা, কফির মত পানিয় খাবেন না। বিশেষত সেহরিতে তো অবশ্যই না। ক্যাফেইনের ফলে শরীর থেকে প্রয়োজনীয় খনিজ লবণ বেরিয়ে যায়।

রুক্ষতা থেকে ত্বককে ভাল রাখতে প্রচুর শাকসবজি ও ফল খান। লেবু, কমলা, আঙুরের মত ভিটামিন ‘সি’ সম্পন্ন খাবার ত্বক উজ্জ্বল করে। এছাড়াও স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য ফলের জুস, দুধ প্রভৃতিও বেশ কার্যকর।

এক্সপার্টের পরামর্শ নিয়ে ত্বকের ধরন বুঝে ফেসিয়াল করে নিলে ভালো হয়। এ সময় ফ্রুট ফেসিয়াল ও পার্ল ফেসিয়াল ত্বকের জন্য ভালো।

আপেলের রস খুব উপকারী। এটি সব ধরনের ত্বকের জন্য ভালো। কোরানো আপেলের সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে ত্বকে লাগাতে পারেন অথবা সরাসরি আপেলের রস ত্বকে লাগাতে পারেন। সপ্তাহে দুই থেকে ৩ দিন ব্যবহার করলে বেশ ভালো ফল পাওয়া যাবে।

টমেটো, কলা, শসা একসঙ্গে মিলিয়ে প্যাক তৈরি করে ইফতারের ঘণ্টাখানেক পর ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। মালটার রসও সপ্তাহে ৪-৫ দিন ত্বকে লাগাতে পারেন। যাদের ত্বক শুষ্ক তারা ত্বকের শুষ্কতা কাটাতে সপ্তাহে ৪ দিন টমেটোর রস লাগাতে পারেন। নিয়মিত এটি করলে দেখবেন ত্বকের শুষ্কতা কেটে যাবে।

যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা সপ্তাহে ২ দিন শসা, গাজর, পুদিনা পাতার রস ও মসুর ডাল বাটা একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগাতে পারেন। ২০ মিনিট পর ঠা-া পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

যাদের ত্বক মিশ্র তারা এ সময় বেসন দিয়ে মুখ ধুলে বেশ উপকার পাবেন। যাদের ত্বক স্বাভাবিক তারা রান্নাঘরের কাজ করতে করতে ডালের পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে পারেন। আলু কেটে তার রস মুখে লাগাতে পারেন। ডাবের পানি দিয়ে মুখ ধুতে পারেন।