আপনার মধ্যে রোমন্টিকতা কতটুকু?

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৪৪:অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৯

সাধারণ ক্লাসিসিজ্‌ম এবং নব্য-ক্লাসিসিজ্‌মের নিয়মানুবর্তিতা, সৌষ্ঠব, ভারসাম্য, আদর্শিকতা, স্থিরতা এবং যৌক্তিকতাকে বর্জনের মাধ্যমে রোমান্টিকতার উদ্ভব ঘটেছিল।

এছাড়া একে আলোকপ্রাপ্তি এবং অষ্টাদশ শতকের যুক্তিবাদ ও ভৌত বস্তুবাদের সাধারণ প্রতিবাদ হিসেবেও আখ্যায়িত করা যায়। রোমান্টিকতার মূল প্রতিপাদ্য ছিল যুক্তিহীনতা, কল্পনা, স্বতঃস্ফূর্ততা, আবেগ, দৃষ্টিভঙ্গি এবং লৌকিকতা বহির্ভূত স্বজ্ঞা। রোমান্টিক সাহিত্যিকদের অনেকে সাদা খাতা সামনে রেখে মনে যা আসত তা-ই লিখে যেতেন। সাহিত্যের উৎস হিসেবে চেতন মনের তুলনায় অবচেতন মনকে প্রাধান্য দিতেন।

Image result for রোমান্টিক কি

আপনি কি প্রেম করছেন? না মানে, আপনার কি কারো সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক রয়েছে? অনেকেই হয়তো এর উত্তরে ‘হ্যাঁ’ বলবেন। অথচ আপনি কি রোমান্টিক? এই প্রশ্নের উত্তর অনেকেই হুট করে দিতে পারবেন না। কারণ সত্যি কথা বলতে কি, প্রেম করলেই রোমান্টিক হওয়া যায় না। আপনি কেমন রোমান্টিক এটা বোঝার জন্য টাইমস অব ইন্ডিয়া একটি প্রশ্নোত্তর পর্ব সাজিয়ে প্রকাশ করেছে তাদের অনলাইন সংস্করণে। আপনি রোমান্টিক কি না এর উত্তর খুব সহজেই জেনে যাবেন এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিলেই।

Image result for রোমান্টিক কি

সত্যিকারের রোমান্টিক

আপনার প্রত্যেকটি প্রশ্নের উত্তর যদি ‘ক’ হয় তাহলে বলা যায়, আপনি সত্যিকারের রোমান্টিক। আপনি আপনার সঙ্গীকে ভীষণ ভালোবাসেন। তাকে সুখী করার জন্য আপনি সবকিছুই করতে পারেন। বলা যায়, এই আচরণগুলো জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে আপনার জীবনে প্রেম ধরে রাখবে।Related image

আপনার সঙ্গীর পছন্দের ফ্লেভারের কেকের উপর চকোলেট সস দিয়ে স্যরি লিখে ওর সামনে হাজির করুন। তবে ঝগড়ার পরের দিন। ভালো লাগবে।

রাতে ঝগড়া হলে পরদিন সকালে আয়নায় লিপস্টিক দিয়ে বড় করে স্যরি লিখতে পারেন। তবে খুব বেশি চেপে লিখে কাচটাই খারাপ করে দেবেন না।

চাইলে বেড টী টা আপনিই করুন। সঙ্গে দু লাইনের ছড়া লিখে দিন, মানে স্যরি সূচক। আর ছড়া না লিখতে পারলে হাসির নোট দিয়ে দিন প্লেটের উপর, ঠিক কাপের নীচে।Related image

এত কিছু না পোষালে বেডসাইড টুলের পাশে লাল টুকটুকে একটা গোলাপ রেখে দিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে আপনার সঙ্গীরও ভালো লাগবে, আর মুখ ফুটে কিছু বলার হাত থেকে আপনিও বাঁচলেন।

টেক্সট মেসেজেও আপনার মনের ভাবটা স্পষ্ট করে বোঝান তাকে, তবে মেসেজ যেন খুব একটা লম্বা না হয়।
আর ব্যাপারটা যদি বার বার হতে থাকে, বা সমস্যা খুবই গুরুতর হয়, তবে একটা সারপ্রাইজ আউটিং প্ল্যান করুন বা কোনও হাল্কা গয়না কিনে উপহার দিন। দুনিয়ায় এমন কেউ নেই যার এগুলো ভালো লাগে না। আর তিনি-ও বুঝতে পারবেন আপনি কত কেয়ারিং।Related image

একটু অভিনবত্বের ছোঁওয়া চাইলে ফ্রিজ, দরজা, ওয়ার্ডরোবে একটা করে স্টিকি নোট রেখে দিন। মানে বাড়ি ফিরে যেই যেই জায়গায় সে যাবে। কেন আপনি আপনার সঙ্গীকে ভালোবাসেন তা ছোট ছোট করে লিখুন। তারপর বিছানায় বালিশের নীচে একটুকরো স্যরি লেখা কাগজ। বরফ গলতে বাধ্য।