মুলাদীতে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ: চার ধর্ষক গ্রেফতার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৪:৩২ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ৪:৩২:অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯

বরিশালের মুলাদী উপজেলার দড়িরচর লক্ষ্মীপুর গ্রামে এক গৃহবধূকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার মঙ্গলবার বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ৪ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে মুলাদী থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত ধর্ষকরা হলো- মুলাদীর পশ্চিম তেরচর গ্রামের বজলু সিকদারের ছেলে রাব্বী সিকদার, ঘোষের চর এলাকার আদারী খানের ছেলে নজরুল ইসলাম, একই এলাকার হযরত আলী সরদারের ছেলে রনি সরদার ও জালালপুর গ্রামের দেলোয়ার খানের ছেলে ফয়সাল খান।

ধর্ষিতার স্বামী বাদী হয়ে ওই চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। ওই মামলা গ্রেফতার দেখিয়ে চার ধর্ষককে আজ বুধবার (১৫ মে) আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠিয়েছে পুলিশ। একই সাথে ধর্ষিতা গৃহবধূকে আদালতের মাধ্যমে শারীরিক পরীক্ষার জন্য শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে প্রেরন করা হয়েছে।

তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে মুলাদী থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) জিয়াউল আহসান জানান, গত সোমবার সকালে ১৯ বছর বয়সী ওই গৃহবধূ তার নিজ বাড়ি থেকে পার্শ্ববর্তী পাইতিখোলা এলাকায় মামা বাড়ি যাচ্ছিলো।

পথিমধ্যে ইজিবাইক চালক নজরুল ইসলাম খান তাকে পৌছে দেয়ার কথা বলে রাস্তা থেকে ইজিবাইকে তুলে নেয়। পরে নজরুল তার তিন বন্ধু ফয়সাল, রাব্বী ও রনিকে ইজিবাইকে উঠিয়ে জালালপুর গ্রামের রহিমের কলাবাগানে নিয়ে যায়। সেখানে তারা চারজন মিলে গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ওসি বলেন, ঘটনার দিবাগত রাত ১০টার দিকে কলাবাগানের ভেতর থেকে গৃহবধূর চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে পৌছে ৩ ধর্ষককে আটক ও ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে দফাদার আবু হানিফ ও চৌকিদার আমিনুল ইসলামের হাতে সোপর্দ করে।

দফাদার ও চৌকিদার ধর্ষকদের থানায় সোপর্দ না করে রহস্যজনক কারনে মুচলেকা রেখে তাদের ছেড়ে দেয়। তবে ধর্ষিতা গৃহবধূকে নিজেদের জিম্মায় রাখে এবং পরবর্তীতে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

ওসি বলেন, খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে গৃহবধূকে জালালাবাদ গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়। এর পর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে চার ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।