ডাকসুর নামে চিঠি, জানেন না ভিপি

নাজমুল হক নাজমুল হক

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১০:১২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০১৯ | আপডেট: ১০:১২:পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০১৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের জুনিয়র সব কোর্সে আবেদন ফি কমানোর দাবিতে ডাকসুর পক্ষ থেকে পরিচালক বরাবর আবেদনপত্র পাঠানো হয়েছে। তবে এ চিঠি সম্পর্কে কিছুই জানেন না ডাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর।

বুধবার দেওয়া ওই চিঠিতে ডাকসু’র সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এবং সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) ও ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনের স্বাক্ষর রয়েছে।

এ ব্যাপারে নুরুল হক নুর সমকালকে বলেন, এ ধরণের কোন চিঠির কথা আমি জানি না। ডাকসুর নামে কোনো চিঠি দেওয়া হয়নি। যেকোনো বিষয়ে ভিপির কনসার্ন বা সম্মতিতে জিএস একটা প্রেস বিজ্ঞপ্তি বা চিঠি দিতে পারে। তবে এ বিষয়ে আমার সঙ্গে কোনো আলোচনা হয়নি। তাই এ চিঠি আমার কাছে ডাকসুর মনে হয়নি। এটা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে হতে পারে।

তিনি বলেন, এ দাবিতে আমারও সমর্থন রয়েছে। এ বিষয়ে ডাকসুর প্রতিনিধিদের কথা বলার সুযোগ রয়েছে। তবে সেটা নিয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা করা যেত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের পরিচালক বরাবর লেখা ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘ইনস্টিটিউটের জুনিয়র কোর্সের আবেদন ফি ৭০০ টাকা বহন করা নিয়মিত শিক্ষার্থীদের পক্ষে কষ্টসাধ্য। বহিরাগতদের জন্যও একই ফি হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আলাদা কোন সুবিধা পাচ্ছে না।’

এজন্য ডাকসুর সদস্য মো. তানভীর হাসান সৈকতের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করে ফি ৭০০ টাকার পরিবর্তে ২০০ টাকা করার দাবি জানানো হয়েছে। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য আবেদন ফি ২০০ টাকা নির্ধারণ করার আগ পর্যন্ত জুনিয়র কোর্সের আবেদন ফরম বিক্রি বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে চিঠিতে।

তানভীর হাসান সৈকত বলেন, এরকম বিষয়ে ভিপির স্বাক্ষরের প্রয়োজন হয় না। জিএস চাইলে এ বিষয়ে চিঠি দিতে পারে।

এ বিষয়ে ভিপি অবগত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা ছাত্রদের বিষয়। আর দ্রুত এ কাজ করার প্রয়োজনীয়তা ছিলো। আর মিটিং ডেকে সবাইকে জানাতে গেলে অনেক সময়ের ব্যাপার। ভিসি স্যারের অনুমতি নিতে হবে। এক্ষেত্রে প্রশাসনিক জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। আমরা চেয়েছিলাম বিষয়টির দ্রুত সমাধান হোক। আর এ বিষয়ে ভিপিও একমত পোষণ করবেন বলে আমাদের প্রত্যাশা।

এদিকে ডাকসুর পক্ষ থেকে দেওয়া চিঠিতে ভিপি নুরুল হক নুরের নাম ও স্বাক্ষর না থাকার ব্যাপারে জানতে চাইলে এজিএস সাদ্দাম হোসাইন বলেন, এ ধরণের চিঠিতে ভিপির নাম থাকে না। জিএস ও এজিএসের স্বাক্ষরেই যেতে পারে। সেজন্যই দেওয়া হয়নি। তবে বিষয়টি সম্পর্কে তার অবগত থাকার কথা।

  • সমকাল