আংটির ফ্যাশন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:১৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০১৭ | আপডেট: ৮:১৬:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০১৭
আংটির ফ্যাশন

হাত ও আঙুলের গড়ন অনুযায়ী আংটি পরলে ভালো দেখায়। বড় পরতে চাইলে যেকোনো একটি আঙুলে একটি আংটিই পরুন, ভালো দেখাবে। একটা সময় ছিল, যখন শুধু অনামিকাতেই আংটি পরা হতো। আজকাল সব আঙুলে, এমনকি বৃদ্ধাঙ্গুলেও আংটি পরার চল রয়েছে। হাত ও আঙুলের গড়ন খাটো হলে চারকোনা, গোলাকার বা এক ফুলবিশিষ্ট আংটি পরলে ভালো দেখাবে। চিকন ও লম্বা গড়নের আঙুলে সব ধরনের আংটিই মানিয়ে যায়। বৃদ্ধা ও কনিষ্ঠা আঙুলের জন্য যতটা সম্ভব সমতল ডিজাইনের আংটি নির্বাচন করুন। বৃদ্ধাঙ্গুলে জিগজ্যাগ, পেঁচানো বা কয়েকটা চিকন আংটি একসঙ্গে নিয়ে বড় আংটির মতো করে পরতে পারেন। তর্জনী, মধ্যমা আর অনামিকায় পরতে পারেন যেকোনো ডিজাইনের আংটি।

কোন আঙুলে কেমন আংটি

আঙুলের ধরন ও সাইজ ভেবে রিং বেছে নিতে হবে। গয়নার ডিজাইনার লায়লা খাইর কনক জানালেন, হাতের আঙুলের আকার যদি লম্বাটে হয়, তাহলে পার্ল কিংবা ওভাল আকারের রিংগুলো সব সময় ভালো নাও লাগতে পারে। সে ক্ষেত্রে রাউন্ড চাংকি রিং ভালো মানাবে। অন্যদিকে ওভাল শেপের রিং বেশি মানায় ছোট আঙুলে। এ ছাড়া জিওম্যাট্রিক শেপের রিংগুলো ছোট আঙুলের জন্যও মানানসই। এতে আঙুলের আকার বড় দেখাবে। অনেকের আঙুল সরু হতে পারে। তাদের জন্য রাউন্ড শেপের স্টোন রিং হাতের সৌন্দর্যকে আকর্ষণীয় করে তুলবে। মোটা ও পুরু রিংও সরু আঙুলকে কিছুটা মোটা দেখাতে সাহায্য করবে। বড় সাইজের স্টোন দিয়ে তৈরি চাংকি রিং একটু মোটা আঙুলের জন্য ভালো। কেননা এতে আঙুল সরু দেখাবে।আংটির ফ্যাশন এর ছবি ফলাফল

এ তো গেল আঙুলের শেপ অনুযায়ী রিংয়ের কথা। যাদের শুধু আঙুল নয়, পুরো হাতটিও বড় ধরনের, তাদের ছোট স্টোন অথবা ছোট ধরনের যেকোনো রিং ব্যবহার করা উচিত নয়, সেখানে পরা উচিত বড় সাইজের স্টোনের চাংকি রিং। ছোট আকারের হাতের জন্য সব সময় ওভারসাইজড রিং এড়িয়ে চলা দরকার। বোঝা যাচ্ছে, আংটি বাছাইয়ের কাজে হাত ও আঙুলের ধরন গুরুত্বপূর্ণ।

অনেকে হার্ট, ওভাল কিংবা রাউন্ড শেপের চাংকি রিং পছন্দ করেন না। তারা বিভিন্ন অক্ষর, শব্দ অথবা সিম্বলিক ডিজাইনের রিং পরতে পারেন।

তবে এটি যেন অবশ্যই আপনার ব্যক্তিত্ব, বয়স ও পরিবেশ উপযোগী হয়।

পাশাপাশি আংটিটি মানানসই হতে হবে আপনার হাতের গড়ন ও পোশাকের সঙ্গেও।আংটির ফ্যাশন এর ছবি ফলাফল

ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, আজকাল সব আঙুলে আংটি পরতে দেখা যায়। ফুল, তারা, প্রজাপতি- সব কিছুই চলতে পারে আংটির ডিজাইনে। আংটি থেকে ঝালরের মতো ঝুলতে পারে ঝুনঝুনি কিংবা চাবির গোছার মতো নকশাও। তবে ঝালরের মতো আংটিগুলো তরুণ বয়সীদের জন্যই অধিক মানানসই। আর পাথরের কারুকাজ করা আংটি সব বয়সীরাই পরতে পারেন।’

কোন পোশাকে কেমন আংটি

ফতুয়া-জিনসের মতো পাশ্চাত্য পোশাকের সঙ্গে নানা রঙের জিগজ্যাগ আংটিও বেশ মানিয়ে যায়। জমকালো অনুষ্ঠানে সোনার প্রলেপ দেওয়া আংটি পরতে পারেন। এতে থাকতে পারে কুন্দন ও পাথরের কারুকাজ। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ উভয়ের সঙ্গেই মানিয়ে যায় এ আংটিগুলো। রঙিন মিনা করা আংটিও পরতে পারেন। এ সময়ে বেশ চলছে ডায়মন্ড কাটের আংটিগুলো। ফতুয়া ও জিনসের সঙ্গে দেশি ঢঙের রঙিন পুঁতি, নারিকেলের মালা, বোতামের একটি বড় আংটি বেশ ভালো লাগবে। শুধু একটি বড় পাথরের আংটি হতে পারে। বড় আংটির সঙ্গে নিশ্চয়ই হাতভর্তি চুড়ি পরলে ভালো দেখাবে না। সেক্ষেত্রে অন্য আঙুলে আংটি না পরাই ভালো। হাতটা বরং খালি হলেই সুন্দর দেখাবে।সম্পর্কিত ছবি

কোথায় পাবেন ও দামদর

বিভিন্ন শপিং মলের গয়নার দোকানে ঢুঁ মারলে নিশ্চিত পেয়ে যাবেন আপনার পছন্দের আংটি। আড়ং, যাত্রা, অঞ্জন’স, বিবিয়ানা, মায়াসির, মাদুলী ও বাংলার মেলায় পাবেন দেশি উপাদানে তৈরি বৈচিত্র্যময় নকশার আংটি।

আড়ংয়ে রুপা ও সোনার প্রলেপ দেওয়া আংটি পাবেন ৫০০ থেকে ৩০০০ টাকায়। পুঁতি ও বিভিন্ন ধাতুর তৈরি ফ্যাশনেবল আংটি পাবেন ১০০ থেকে ৫০০ টাকায়।

অঞ্জন’স-এ পাবেন কুন্দন, মুক্তা ও পাথর বসানো নানা রঙের রুপা এবং গোল্ডপ্লেটেড আংটি ৪৫০ থেকে দুই হাজার ৩৫৭ টাকায়। ডায়মন্ড কাটের বিদেশি আংটিগুলো পাবেন ৫০০-৩০০০ টাকায়। অ্যারাবিয়ানসে পাওয়া যাচ্ছে মিনা করা ও সোনার প্রলেপ দেওয়া আংটি। কুন্দন, রুবি ও পান্না বসানো আংটিও রয়েছে এখানে। চাইলে ফরমায়েশ দিয়েও বানানোর সুযোগ রয়েছে। রুপার ওপর সোনার প্রলেপ দেওয়া আংটি পাওয়া যাবে ১০০০-৮০,০০০ টাকায়। ফ্যাশন হাউস যাত্রায় পাবেন রুপা, তামা, পিতল, বিডস, সুতি ও কাঠের তৈরি আংটি।আংটির ফ্যাশন এর ছবি ফলাফল

এ ছাড়া ঢাকার বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সের শেল গ্যালারি, স্টাইল পার্ক (বিডি) ও মায়াসিরে পাবেন বড় কাঠের ও রুপার আংটি। পিরান ও মাদুলীতে পাবেন ফিউশনধর্মী আংটি। ঢাকার মেট্রো শপিং মল, জেনেটিক প্লাজা, সীমান্ত স্কয়ার, পিংক সিটি ছাড়াও আর্চিজ ও হলমার্কের দোকানগুলোতে পেয়ে যেতে পারেন পছন্দের বড় আংটি।

দেশীয় ঘরানার আংটি পেতে যেতে পারেন শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটেও। গয়না ও আংটির জন্য চাঁদনী চক মার্কেট আর গাউছিয়া সুপার মার্কেট তো সবারই চিরচেনা। এ ছাড়া অনলাইন শপ থেকেও কিনতে পারেন রকমারি নকশার আংটি।

  • সূত্র: কালেরকণ্ঠ